Tag Archives: book building method

বুকবিল্ডিং পদ্ধতি সংশোধনে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে এসইসি

শেয়ারের মূল্য নির্ধারণে বুকবিল্ডিং পদ্ধতির সংস্কারের লক্ষে সিকিউরিটিজ এ্যান্ড এঙ্চেঞ্জ কমিশন (পাবলিক ইসু্য) বিধিমালা, ২০০৬ সংশোধনের লক্ষে গতকাল বুধবার প্রজ্ঞাপন জারি করেছে এসইসি। সংশোধনীতে কোন রকম সীমা আরোপ না করে শেয়ারের নির্দেশক মূল্যের বিষয়টি উন্মুক্ত রাখা হয়েছে। তবে নতুন বিধিতে এসইসিকে নির্দেশক মূল্য পুনর্বিবেচনার জন্য ফেরত পাঠানো বা আইপিও আবেদন বাতিলের ক্ষমতা দেয়া হয়েছে।
বুকবিল্ডিংয়ের সংশোধনীতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের দর প্রস্তাব (বিডিং) প্রক্রিয়ার মধ্যে বরাদ্দ শেয়ার বিক্রির নিষেধাজ্ঞা (লক ইন) ১৫ দিন থেকে বাড়িয়ে ৪ মাস করা হয়েছে। প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের জন্য মোট শেয়ারের ৪০ শতাংশ বরাদ্দ থাকবে। তবে কোন একটি প্রতিষ্ঠান দর প্রসত্মাবের মাধ্যমে ৫ শতাংশের বেশি শেয়ার বরাদ্দ নিতে পারবে না। দর প্রস্তাব প্রক্রিয়া শেষ হওয়ার পর ৫ কার্যদিবসের মধ্যে এসইসিতে চূড়ান্ত প্রসপেক্টাস জমা দিতে হবে। প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের দর প্রস্তাব শেষ হওয়ার পর কমিশনের অনুমোদন নিয়ে ১৫ দিনের মধ্যে আইপিও আবেদন গ্রহণ শুরু করতে হবে।
সংশোধনীতে সম্পদ ব্যবস্থাপনা কোম্পানিকে বুকবিল্ডিং প্রক্রিয়ায় নির্দেশক মূল্য প্রস্তাব ও বিডিংয়ে অংশগ্রহণের যোগ্য হিসেবে অনত্মর্ভুক্ত করা হয়েছে। এছাড়া নির্দেশক মূল্য নির্ধারণে ইন্সু্যরেন্স কোম্পানি, ব্রোকারেজ হাউস ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানকে যুক্ত রাখার বিধান করা হয়েছে। কমপৰে ২০টি যোগ্য প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীর অংশগ্রহণে নির্দেশক মূল্য নির্ধারণ বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। এরমধ্যে মার্চেন্ট ব্যাংক, বাণিজ্যিক ব্যাংক, সম্পদ ব্যবস্থাপনা কোম্পানি, ব্যাংক বহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠান, বীমা কোম্পানি এবং স্টক ডিলার ক্যাটাগরির কমপৰে তিনটি করে প্রতিষ্ঠান থাকতে হবে। নির্দেশক মূল্য প্রসত্মাবকারী এসব প্রতিষ্ঠানের জন্য ১০ শতাংশ শেয়ার কেনা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।
বুকবিল্ডিং পদ্ধতিতে আইপিও আবেদনের পর কোন কোম্পানির আর্থিক বিবরণী বা সম্পদ পুনর্মূল্যায়নে অসঙ্গতি চিহ্নিত হলে এসইসির নিজস্ব নিরীৰা প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে পুনঃনিরীৰার বিধান করা হয়েছে। নির্দেশক মূল্য নির্ধারণের লৰ্যে রোড শো’ আয়োজনের কমপক্ষে ৫ দিন আগে কোম্পানির খসড়া বিবরণীর (প্রসপেক্টাস) ছাপানো কপি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনের কাছে পাঠাতে হবে। তবে এতে কোনভাবেই নির্দেশক মূল্যের কোন প্রস্তাব করা যাবে না। রোড শো অনুষ্ঠানের তিন দিনের মধ্যে নির্দেশক মূল্য নির্ধারণ করে এসইসিতে জমা দেয়ার বিধান করা হয়েছে।
Source: The Daily Janakantha, October 1, 2011

Regulator alters share pricing system

The Securities and Exchange Commission (SEC) yesterday modified the book building method, removing the much-talked-about clause on stock valuation.

The clause was related to determining the indicative price of shares of a company, which will use the book building system for an initial public offering, based on the company’s earnings per share (EPS) and net asset value (NAV).

The removal of the clause underlines the importance of the mechanism of discovering demand and price of shares by market forces.

The clause that attracted criticism from analysts prescribed that indicative price does not exceed the following yardsticks: 15 times of weighted average EPS of the preceding three years, or three times of NAV, or whichever is lower but no less than NAV of a share.

The stockmarket regulator finalised the amendment at a meeting chaired by Prof M Khairul Hossain, chief of the SEC.

“The commission removed the proposed clause on valuation after scrutinising stakeholders’ observation and opinions and taking into account international practices on the method,” Saifur Rahman, a spokesperson for the SEC, told reporters after the meeting.

After the stockmarket debacle in January, the government directed the SEC to suspend the book building method. But following recommendations by a high-profile probe committee on the share market crash, the government later instructed the regulator to alter book-building rules, instead of suspending the system, as it is practised in other countries.

In line with the final modification, Rahman said, directors and sponsors of an issuer company would not be an issue manager for their own company under the system.

An issuer company will have to run advertisements in five national dailies with a 10-day notice about holding a road-show, and within next three workdays of the road-show, the issuer company must set the indicative price of its shares and submit it to the SEC, according to the rules.

In the bidding for price discovery, at least 20 institutions from six categories will have to participate. From each category, at least three institutions will have to take part in the bidding, said Rahman, also an executive director of the SEC.

The asset management companies would be allowed to become institutional investors, and they can participate in the bidding, he said.

Ten percent shares of an IPO will be reserved for the institutional investors who will set the indicative price, and the ratio of eligible institutional investors would be 40 percent. An eligible institutional investor can bid for the highest 5 percent share, he said.

The lock-in period for the eligible institutional investors would be six months, the SEC official said.

The SEC also finalised a draft on amendment of right issue rules and it will be published in the daily newspapers for public opinion. The regulator further completed a guideline on placement, and a notification will be issued soon to this effect, Rahman added.

Source: The Daily Star,  September 28, 2011

SEC proposes change in book building method

The Securities and ExchangeCommission (SEC) has sent to the finance ministry for approval a guideline that, among others, contains the maximum allowable price-earning (P/E) ratio at 15 for a company willing to go public under the book building method, sources said.

The securities regulator has also proposed the formation of a five-member committee to review the balance sheets of the companies that are interested to go public under book building method.

A top official of the SEC said the review committee will work until the government forms the Financial Reporting Council of Bangladesh.

In the revised guideline, the regulator has also proposed a two-month lock-in on the shares of institutional investors who will quote to fix the companies’ indicative prices during road shows.

The regulatory move comes after a series of criticisms over the book building method, as some companies allegedly earlier siphoned off money from the stock market through over-pricing.

Before offloading shares, many companies fixed very high indicative prices, which do not match with their fundamentals, following the bullish trend of the market.

In some cases, some auditors helped the company authorities in fixing high indicative prices through window-dressing balance sheets.

As a result, a vast amount of money was allegedly siphoned off from the stock market causing liquidity crisis.

In such a situation, Finance Minister AMA Muhith declared the book building method suspended on January 19.

After this declaration, the further IPO proceeds of Mobil Jamuna Lubricants (MJL) and MI Cement were in trouble. These two companies were also blamed for taking very high premiums, which do not match with their fundamentals.

At last, the regulator took initiatives for the listing of these two companies by imposing a condition on both the companies to buy back their shares from the shareholders if prices of the same go down below the offer prices within six months from the date of their listing.

But in absence of companies’ response, the SEC decided Sunday not to allow the listing of the companies beyond the regulatory condition.

However, the SEC decided in principle recently not to allow any companies with over pricing. And the regulator rejected two IPO applications submitted by STS Holdings (Apollo Hospitals) and Rangpur Dairy and Foods to go public under fixedprice method.

STS Holdings demanded a premium of Tk 115 for each shares of Tk 10, despite the company’s earning per share (EPS) was Tk 1.20 and Tk 0.26 in 2010 and 2009 respectively.

Sources said before going public the company sold placement shares at Tk 70 to Tk 90.

Source: The financial express, 15 March, 2011