Tag Archives: aamra technologies

আমরা টেকনোলজিসের আইপিও ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে

বিডিআইপিও ডট কম-এ আমরা টেকনোলজিসের আইপিও ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে। সহজে ও স্বল্প সময়ে ফলাফল জানবার জন্য ক্লিক করুন http://new.bdipo.com/companies/42/results/search

সূত্র: নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিআইপিও.কম

আমরা টেকনোলজির আইপিওর আবেদন গ্রহণ ১ এপ্রিল শুরু হয়েছে

প্রকৌশল খাতের আমরা টেকনোলজির প্রাথমিক শেয়ার বরাদ্দের জন্য রবিবার থেকে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছ হতে আবেদনপত্র গ্রহণ শুরু হয়েছে।
আগ্রহী বিনিয়োগকারীরা ৫ এপ্রিল পর্যন্ত আবেদনপত্র জমা দিতে পারবেন। তবে প্রবাসী বাংলাদেশী (এনআরবি) বিনিয়োগকারীদের জন্য ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত কোম্পানির প্রধান কার্যালয়ে আবেদনপত্র পৌঁছানোর সুযোগ থাকবে।
ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ওয়েবসাইটে দেয়া তথ্যে জানা যায়, এর আগে এসইসির ৪২০তম নিয়মিত কমিশন সভায় আমরা টেকনোলজির আইপিও অনুমোদন দেয়া হয়, যা কমিশনে এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে। এতে বলা হয়, আমরা টেকনোলজি আইপিওর মাধ্যমে ১০ টাকা অভিহিত মূল্যের দুই কোটি ১৫ লাখ ৭২ হাজার শেয়ার ছাড়বে। এ শেয়ার ছাড়ার মাধ্যমে কোম্পানি পুঁজিবাজার থেকে ৫১ কোটি ৭৭ লাখ ২৮ হাজার টাকা তুলবে। প্রতি শেয়ারের প্রিমিয়াম ১৪ টাকাসহ মোট ২৪ টাকা দরে তা বাজারে ছাড়া হবে।
কোম্পানির পুঁজিবাজার থেকে উত্তোলিত টাকা দিয়ে ব্যাংক ঋণ পরিশোধ, এটিএম ও পিওএস মেশিন ভাড়ার ভিত্তিতে সম্ভাব্য ক্রেতাকে সরবরাহ করা এবং প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের খরচ (ট্যাক্স খরচসহ) খাতে ব্যয় করবে।
২০১০ সালের আর্থিক বিবরণী অনুযায়ী আমরা টেকনোলজি লিমিটেডের নিট এ্যাসেট ভ্যালু ২৪ দশমিক ৮১ টাকা এবং শেয়ারপ্রতি আয় ২ দশমিক ৬১ টাকা।

সূত্র: দৈনিক জনকণ্ঠ, ২ এপ্রিল, ২০১২

দুই আইপিওর চাঁদা গ্রহণ শুরু আগামী মাসে

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্তির অপেক্ষায় থাকা নতুন দুই কোম্পানির প্রাথমিক গণপ্রস্তাব বা আইপিওর চাঁদা সংগ্রহ শুরু হচ্ছে। কোম্পানি দুটি হলো ইউনিক হোটেল অ্যান্ড রিসোর্ট (ওয়েস্টিন) এবং আমরা টেকনোলজিস।
এর আগে কোম্পানি দুটি আইপিওতে শেয়ার ছাড়ার জন্য বাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (এসইসি) চূড়ান্ত অনুমোদন পেয়েছে।
এর মধ্যে আগামী ১ এপ্রিল থেকে শুরু হবে আমরা টেকনোলজিসের আইপিওর টাকা গ্রহণ। চলবে ৫ এপ্রিল পর্যন্ত। তবে প্রবাসী বাংলাদেশিরা ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত আবেদনের সুযোগ পাবেন।
অন্যদিকে ১৫ এপ্রিল থেকে শুরু হবে ইউনিক হোটেলের আইপিওর চাঁদা সংগ্রহ কার্যক্রম। চলবে ১৯ এপ্রিল পর্যন্ত। অবশ্য প্রবাসী বাংলাদেশিরা ২৮ এপ্রিল পর্যন্ত আবেদনের সুযোগ পাবেন। আইপিওতে আবেদনের জন্য প্রবাসীদেরকে কিছুটা বাড়তি সময় দেওয়া হয়।
১০ টাকা অভিহিত মূল্যের সঙ্গে ১৪ টাকা প্রিমিয়াম যোগ করে আমরা টেকনোলজিসের প্রতিটি শেয়ারের বিক্রয়মূল্য নির্ধারিত হয়েছে ২৪ টাকা।
প্রসপেক্টাস অনুসারে, কোম্পানিটির প্রতিটি বাজারগুচ্ছ বা মার্কেট লটে রয়েছে ২৫০টি শেয়ার। সেই হিসাবে কোম্পানিটির প্রতি লট শেয়ারের আবেদনের জন্য লাগবে ছয় হাজার টাকা।
জানা গেছে, কোম্পানিটি আইপিওর মাধ্যমে মোট দুই কোটি ১৫ লাখ ৭২ হাজার শেয়ার বাজারে ছাড়বে, যা ৮৬ হাজার ২৮৮টি লটের মাধ্যমে বিভাজিত।
একইভাবে ইউনিক হোটেলের প্রতিটি শেয়ারের বিক্রয়মূল্য নির্ধারিত হয়েছে ৭৫ টাকা। এর মধ্যে ১০ টাকা অভিহিত মূল্য আর ৬৫ টাকা প্রিমিয়াম।
কোম্পানিটির প্রতিটি বাজারগুচ্ছ বা মার্কেট লটে রয়েছে ১০০টি শেয়ার। সেই হিসাবে প্রতি লট শেয়ারের আবেদনের জন্য লাগবে সাড়ে সাত হাজার টাকা। কোম্পানিটি আইপিওর মাধ্যমে মোট দুই কোটি ৬০ লাখ শেয়ার বাজারে ছাড়বে, যা দুই লাখ ৬০ হাজার লটের মাধ্যমে বিভাজিত।
আইপিতে চাঁদা গ্রহণ সম্পন্ন হওয়ার পর নিয়মমাফিক লটারি অনুষ্ঠিত হবে এবং সে অনুযায়ী শেয়ার বরাদ্দ করা হবে। এরপর নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে এই দুই কোম্পানি বাজারে তালিকাভুক্ত হবে।

সূত্র: প্রথম আলো, মার্চ ২৭, ২০১২

পুঁজিবাজারে আসছে আমরা টেকনোলজিস

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হতে যাচ্ছে আইটি সলিউশন প্রতিষ্ঠান আমরা টেকনোলজিস লিমিটেড। আগামী ১ এপ্রিল থেকে ৫ এপ্রিল পর্যন্ত প্রতিষ্ঠানটির প্রাথমিক গণপ্রস্তাব বা আইপিওর আবেদন (সাবস্ক্রিপশন) গ্রহণ করা হবে। আর অনাবাসী বাংলাদেশিদের সাবস্ক্রিপশন চলবে ১ থেকে ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত। প্রতিষ্ঠানটির প্রসপেক্টাস সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
প্রসপেক্টাস সূত্রে আরও জানা যায়, প্রতিষ্ঠানটির প্রি আইপিও পরিশোধিত মূলধন ২০ কোটি ৩৭ লাখ ৪০ হাজার টাকা। প্রতিষ্ঠানটি দুই কোটি ১৫ লাখ ৭২ হাজার শেয়ার ছেড়ে বাজার থেকে ৫১ কোটি ৭৭ লাখ ৩০ হাজার টাকা সংগ্রহ করবে। এ ক্ষেত্রে ১০ টাকা অভিহিত মূল্যের প্রতিটি শেয়ারে ১৪ টাকা প্রিমিয়ামসহ ২৪ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।
সর্বশেষ প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী ২০১১ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত প্রতিষ্ঠানটির শেয়ারপ্রতি মোট সম্পদমূল্য (এনএভি) ২৭ দশমিক ২৯ টাকা ও শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) ২.৬৩ টাকা।
প্রতিষ্ঠানটির ইস্যুব্যবস্থাপক লঙ্কা-বাংলা ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড।

সূত্র: প্রথম আলো, মার্চ ২৬, ২০১২