সানলাইফের রিফান্ড জটিলতা

জীবন বীমা কোম্পানির প্রতি বিনিয়োগকারীদের চাহিদা ও কোন প্রিমিয়াম না থাকায় সানলাইফের প্রাথমিক গণপ্রস্তাবে (আইপিও) আগ্রহী হয়েছিল। ফলে নির্ধারিত একটি লটের বিপরীতে আবেদন পড়েছিল প্রায় ৬৩ গুণ। লটারিতে বিজয়ীরা শেয়ার বরাদ্দ পেলেও অনেক আবেদনকারীই এখনও রিফান্ড পাননি। তাদের ভোগান্তির এখন শেষ নেই। অনেক বিনিয়োগকারীর মুখেই এখন হতাশার সুর। কোম্পানিতে যোগাযোগ ছাড়া এসব রিফান্ড পাওয়া যাচ্ছে না বলে অভিযোগ রয়েছে
বিনিয়োগকারীদের অভিযোগ, মূলধন সংগ্রহের সময় কোম্পানিগুলো বিভিন্ন মুখরোচক কথা বললেও টাকা সংগ্রহ শেষ হলে বিনিয়োগকারীদের দিকে তাকায় না। অনেক কোম্পানি বিনিয়োগকারীদের টাকা অন্য খাতে খাটায়। একাধিক বিনিয়োগকারী জানান, রিফান্ড জটিলতার কারণে কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগেরও কোন সুযোগ নেই। কারণ আইপিও ফরমে কোম্পানির যেসব ফোন নম্বর দেয়া হয়েছে সেগুলো সঠিক নয়। কোম্পানির অফিসে যাওয়া ছাড়া কোন বিকল্প নেই। এতে সময় এবং অর্থ দুয়েরই অপচয় হচ্ছে। তাই অনেক বিনিয়োগকারীই জানিয়েছেন, লাভের আশায় এই আইপিও আবেদন করে কিছুটা ভুলই করেছেন।
এদিকে রিফান্ড জটিলতা নিরসনে বিনিয়োগকারীরা এ ব্যাপারে একটি যুগোপযোগী নীতিমালা প্রণয়নের দাবি জানিয়ে আসছেন দীর্ঘদিন ধরে।
এদিকে এনভয় টেক্সটাইল নামের আরও একটি কোম্পানি আইপিও’র লটারির পরে রিফান্ড জটিলতা দেখা দেয়। বিশেষ করে প্রাইম ব্যাংকে আবেদন করা বিনিয়োগকারীদের রিফান্ডে কিছুটা সমস্যা দেখা দেয়। পরে অবশ্য এটি নিরসন করা হয়।
প্রসঙ্গত, সানলাইফের আইপিও আবেদন শুরু হয় ৪ নবেম্বর এবং ৮ নবেম্বর শেষ হয়। আইপিও লটারির ড্র সম্পন্ন হয় গত ৬ ডিসেম্বর।

Source: The daily Janakantha