আবারো বাড়লো আইপিও কোটার মেয়াদ

নিজস্ব প্রতিবেদক: ২০১০ সালে পুঁজিবাজারে ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীদের জন্য প্রাথমিক গণপ্রস্তাবে (আইপিও) ২০ শতাংশ কোটা সংরক্ষণের সময়সীমা আরও এক বছর বাড়িয়েছে সরকার। আগামী ৩০ জুন,২০১৯ তারিখ পর্যন্ত ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীরা আইপিওতে ২০ শতাংশ বরাদ্দ পাবেন।

চলতি সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসে (রোববার) অর্থমন্ত্রনালয় থেকে আইপিও কোটার মেয়াদ বাড়িয়ে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনে (বিএসইসি) চিঠি পাঠানো হয়েছে। বিএসইসি সূত্রে জানা গেছে।

জানা যায়, গেল জুন মাসে বিএসইসির পক্ষ থেকে আইপিও কোটার মেয়াদ এক বছর বাড়ানোর জন্য আবেদন করা হয়। সেই আবেদনের প্রেক্ষিতে অর্থমন্ত্রনালয় আইপিওতে ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীদের জন্য পূর্ব নির্ধারিত কোটার মেয়াদ বাড়িয়ে দেয়।

চলতি বছরের ৩০ জুন আইপিও কোটার মেয়াদ শেষ হয়। কিন্তু ক্ষতিগ্রস্তরা এখনও ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে না পারায় এর মেয়াদ আগামী ২০১৯ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। এই সুবিধা ধাপে ধাপে বাড়ানো হয়েছে। এ নিয়ে আইপিওতে ক্ষতিগ্রস্তদের ২০ শতাংশ কোটার ৭ম মেয়াদে চলছে।

২০১০ সালের ডিসেম্বর থেকে শুরু হওয়া শেয়ারবাজারের ধসে ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীরা এ সুবিধা পাচ্ছেন। ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীর সংখ্যা নয় লাখ ৩৩ হাজার।

২০১২ সালের মার্চে এই দুই বাজারের ক্ষতিগ্রস্ত ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের জন্য বিশেষ সুবিধা বা স্কিম ঘোষণা করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। ঘোষিত প্রণোদনার আওতায় এক বছরের সুদের ৫০ শতাংশ মওকুফ এবং আইপিওতে ২০ শতাংশ কোটা সংরক্ষণের ঘোষণা দেওয়া হয়।

শেয়ারনিউজ; ১৬ জুলাই ২০১৮