জেনেক্সের মুনাফা কমেছে: লেনদেন শুরু কাল

নিজস্ব প্রতিবেদক: সদ্য প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে টাকা উত্তোলন করা জেনেক্স ইনফোসিস লিমিটেড ২০১৮-২০১৯ হিসাব বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানির শেয়ার প্রতি মুনাফা কমেছে। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা যায়, অক্টোবর ২০১৮ থেকে ডিসেম্বর ২০১৮ পর্যন্ত দ্বিতীয় প্রান্তিকে কোম্পানিটির আইপিওর আগে শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৪৭ টাকা । আইপিওর পরে ইপিএস হয়েছে ০.৩৬ টাকা।

এই সময় কোম্পানিটির সমন্বিতভাবে নিট মুনাফা হয়েছে ২ কোটি ৮৯ লাখ ৯০ হাজার টাকা। যা আগের বছর একই সময় মুনাফা ছিল ৩ কোটি ৭ লাখ ২০ হাজার টাকা।

এদিকে ২০১৮-২০১৯ হিসাব বছরের অর্ধবার্ষিকে (জুলাই-ডিসেম্বর’১৮) কোম্পানিটির আইপিওর আগে ইপিএস হয়েছে ০.৯৭ টাকা। আইপিওর পরে ইপিএস হয়েছে ০.৯৮ টাকা।

এই সময় কোম্পানিটির সমন্বিতভাবে নিট মুনাফা হয়েছে ৫ কোটি ৯৫ লাখ ৩০ হাজার টাকা। যা আগের বছর একই সময় মুনাফা ছিল ৬ কোটি ৮ হাজার টাকা।

৩১ ডিসেম্ববর ২০১৮ সাল পর্যন্ত সমন্বিতভাবে কোম্পনির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ১৬.৯৫ টাকায়। তবে আইপিওতে ইস্যুকৃত ২ কোটি শেয়ার বিবেচনায় এনএভিপিএস দাড়াঁয় ১৫.২৫ টাকা।

এদিকে, আগামীকাল ৬ ফেব্রুয়ারি, বুধবার সকাল সাড়ে ১০টা থেকে শেয়ারবাজারে শুরু করবে জেনেক্স ইনফোসেস। ওইদিন “এন” ক্যাটাগরিতে লেনদেন শুরু করা কোম্পানির ট্রেডিং কোড হবে “GENEXIL”। ডিএসইতে কোম্পানি কোড হবে ২২৬৫০ আর সিএসইতে কোম্পানি কোড হবে ২৪০১১।

এর আগে গত ২০ জানুয়ারি লটারিতে বরাদ্দ পাওয়া শেয়ার সিডিবিএলের মাধ্যমে বিনিয়োগকারীদের বেনিফিশিয়ারি ওনার্স (বিও) হিসেবে জমা হয়েছে। গত বছরের ২০ ডিসেম্বর, বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টায়, অডিটরিয়াম অব ইনস্টিটিউশন ইঞ্জিনিয়ার্স (আইইবি), রমনা, ঢাকায় অনুষ্ঠিত হয় এ কোম্পানির আইপিও লটারির ড্র। আর গত ১৮ নভেম্বর থেকে ২৯ নভেম্বর পর্যন্ত কোম্পানিটির আইপিওতে আবেদন গ্রহণ করা হয়।

কোম্পানিটির আইপিওতে ৩৫.৭৫ গুণ আবেদন জমা পড়েছে। অর্থাৎ ২০ কোটি টাকার বিপরীতে কোম্পানিটির আইপিওতে ৭১৫ কোটি ৬ লাখ ৫০ হাজার টাকার আবেদন জমা পড়েছে। এর মধ্যে দেশী বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৪৬৩ কোটি ৬৬ লাখ ৫ হাজার টাকার, ক্ষতিগ্রস্ত ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৪৬ কোটি ৩২ লাখ ৭৫ হাজার টাকার, প্রবাসী বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৩৮ কোটি ৮০ হাজার টাকার, ইলিজিবল ইনভেস্টরদের (এমএফ ও সিআইএস কাছ থেকে ১৪ কোটি ২০ লাখ টাকার এবং ইলিজিবল ইনভেস্টরদের কাছ থেকে (এমএফ ও সিআইএস ব্যতীত) ১৫২ কোটি ৮৬ লাখ ৯০ হাজার টাকার।

গত ০৪ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৬৫৬তম সভায় কোম্পানিটির আইপিও অনুমোদন করা হয়।

জানা যায়, কোম্পানিটি শেয়ারবাজারে ২ কোটি শেয়ার ছেড়ে ২০ কোটি টাকা উত্তোলন করবে। এজন্য প্রতিটি শেয়ারের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১০ টাকা। উত্তোলিত অর্থ দিয়ে কোম্পানিটি ব্যবসা সম্প্রসারণ, ঋণ পরিশোধ ও আইপিও খরচ খাতে ব্যয় করবে।

৩০ জুন ২০১৭ পর্যন্ত আর্থিক বিবরণী অনুযায়ী কোম্পানিটির পুন:মূল্যায়ন ছাড়া নীট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ১৩.৯৬ টাকা।

জেনেক্স ইনফোসিসের সাবসিডিয়ারি কোম্পানিসহ ২০১৬-১৭ অর্থবছরে সমন্বিত শেয়ারপ্রতি মুনাফা (ইপিএস) হয়েছে ২.০২ টাকা।

আইপিওতে কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে ইম্পেরিয়াল ক্যাপিটাল লিমিটেড।

শেয়ারনিউজ; ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯