বুধবার থেকে ড্রাগন সোয়েটারের লেনদেন শুরু

২৩ মার্চ বুধবার থেকে দেশের উভয় বাজারে লেনদেন শুরু হচ্ছে ড্রাগন সোয়েটার অ্যান্ড স্পিনিং মিলসের। ‘এন’ ক্যাটাগরিভুক্ত হিসেবে উভয় বাজারে এ কোম্পানির লেনদেন শুরু হবে। ডিএসই ও সিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

গত ১৬ মার্চ প্রাথমিক গণপ্রস্তাবে (আইপিও) বিজয়ী আবেদনকারীদের বেনিফিশিয়ারি ওনার্স (বিও) অ্যাকাউন্টে শেয়ার জমা দিয়েছে কোম্পানিটি। শেয়ার জমা দেওয়ার পর এ লেনদেন শুরুর তারিখ নির্ধারণ করেছে দেশের দুই স্টক এক্সচেঞ্জ। এর আগে গত ১৬ ফেব্রুয়ারি আইপিওতে আবেদনকারীদের মধ্যে শেয়ার বরাদ্দে লটারির ড্র অনুষ্ঠিত হয়। কোম্পানির চাহিদার তুলনায় বেশি আবেদন পড়ায় এ লটারি অনুষ্ঠিত হয়। কোম্পানিটিকে ১০ টাকা অভিহিত মূল্যে ৪ কোটি শেয়ার ছেড়ে পুঁজিবাজার থেকে ৪০ কোটি টাকা সংগ্রহের অনুমোদন দেয় পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। পুঁজিবাজার থেকে উত্তোলিত টাকায় মেশিন ক্রয়, বিল্ডিং ও সিভিল কনস্ট্রাকশন, স্পেয়ার পার্টস ক্রয়, চলতি মূলধন এবং আইপিও খরচ খাতে ব্যয় করবে কোম্পানিটি। কোম্পানিটির গত ৫ বছরের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) ১.৩৩ টাকা (ওয়েটেড এভারেজ) এবং শেয়ারপ্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৮.৭৯ টাকা। কমিশনের ৫৬১ তম সভায় এ অনুমোদন দেওয়া হয়। অনুমোদন পাওয়ার পর কোম্পানিটি ১৭ জানুয়ারি থেকে ২৬ জানুয়ারি পর্যন্ত আইপিও আবেদন গ্রহণ করে। কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে স্বদেশ ইনভেস্টমেন্ট।

জানা গেছে, শতভাগ রফতানিমুখী সুতা ও সোয়েটার উৎপাদনকারী এ কোম্পানি ১৯৯৯ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। বর্তমানে কোম্পানির পরিশোধিত মূলধন ২৮ কোটি ৭১ লাখ টাকা। বছরে ৬৫ লাখ ৭০ হাজার পাউন্ড সুতা ও ২১ লাখ ৬০ হাজার পিস সোয়েটার উৎপাদন সক্ষমতা রয়েছে এ কোম্পানির। আন্তর্জাতিক মান নিয়ন্ত্রক সংস্থা (আইএসও) সনদপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠানটি মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশসহ যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, মেক্সিকো, ব্রাজিল, চিলি, অস্ট্রেলিয়া ও ইউরোপের কিছু দেশে সোয়েটার রফতানি করে।

(দ্য রিপোর্ট/এমকে/এম/মার্চ ২১, ২০১৬)