আড়াই বছর পর কার্যকর হচ্ছে বুকবিল্ডিং পদ্ধতি

প্রায় আড়াই বছর পর কার্যকর হচ্ছে পুঁজিবাজারে নতুন কোম্পানির তালিকাভুক্তির প্রক্রিয়া বুকবিল্ডিং পদ্ধতি। এই পদ্ধতিতে শেয়ারের প্রাথমিক মূল্য নির্ধারণের পর বাজারে তালিকাভুক্তির আগ্রহ প্রকাশ করেছে ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি। কোম্পানিটি পুঁজিবাজারে মোট ৩ কোটি শেয়ার ছাড়বে। এ উপলক্ষে ১৭ এপ্রিল ‘রোড শো’ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে কোম্পানিটি।

দীর্ঘদিন পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর শেয়ারের প্রাথমিক মূল্য নির্ধারণের ক্ষেত্রে ২০১০ সালের মার্চে বুকবিল্ডিং পদ্ধতি কার্যকর করা হয়। কিন্তু ওই সময় বিধিমালার দূর্বলতার সুযোগে বিভিন্ন কোম্পানি প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের সঙ্গে যোগসাজস করে শেয়ারের অস্বাভাবিক মূল্য নির্ধারণ করে। এ বিষয়ে গণমাধ্যমগুলো সোচ্চার হওয়ায় সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ২০১১ সালের ২০ জানুয়ারি এই পদ্ধতির কার্যকারিতা স্থগিত করে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশে সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। পরে সামগ্রিক পরিস্থিতি বিশ্লেষণ ও বাজার সংশ্লিষ্টদের মতামত নিয়ে ওই বছরের ২৭ সেপ্টেম্বর এই পদ্ধতির সংশোধনী অনুমোদন করে বিএসইসি। পরে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, বাজারে শেয়ারের চাহিদা ও যোগানের (ডিমান্ড অ্যান্ড সাপ্লাই) সামঞ্জস্য বিধানের জন্য নতুন নতুন কোম্পানি তালিকাভুক্তির ধারাবাহিকতা রক্ষা করছে বিএসইসি। প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে শেয়ার সরবরাহের ক্ষেত্রে যাতে দীর্ঘ বিরতি না পড়ে সেদিকে নজর রাখা হচ্ছে। আবার একসঙ্গে অনেক কোম্পানি আসার ফলে বাজারে যাতে অর্থ সংকট তৈরি না হয়Ñ সে বিষয়টিও বিবেচনায় রাখা হচ্ছে। তবে বিএসইসিতে আবেদন করার পর উদ্যোক্তারা যাতে অযথা সময়ক্ষেপণ বা হয়রানির শিকার না হনÑ সেদিকেও গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে।

গত দু’ বছরে নির্ধারিত মূল্য (ফিক্সড প্রাইজ) পদ্ধতিতে প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে প্রায় ২৫টি কোম্পানি বাজারে এলেও বুকবিল্ডিং পদ্ধতিতে আগ্রহ ছিল না কোম্পানি ও ইস্যু ম্যানেজারদের। তবে শেষ পর্যন্ত এই পদ্ধতিতে বাজারে আসছে ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি। কোম্পানিটি ১০ টাকা অভিহিত মূল্যের ৩ কোটি শেয়ার ছেড়ে বাজার থেকে অর্থ সংগ্রহ করবে। আগামী ১৭ এপ্রিল গুলশানের লেক শো’র হোটেলে কোম্পানির ‘রোড শো’ অনুষ্ঠিত হবে। পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্তির জন্য কোম্পানির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব পালন করছে লঙ্কাবাংলা ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড।

শেয়ারনিউজ২৪/