ক্ষতিগ্রস্ত ৮ লাখ বিনিয়োগকারী পাচ্ছেন আইপিওতে বিশেষ কোটা

ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ
পুঁজিবাজারে ভয়াবহ দরপতনে ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের সদস্যভুক্ত ৩০৭টি ব্রোকারেজ হাউসের ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীদের প্রাথমিক গণপ্রস্তাবে (আইপিও) বিশেষ কোটা সুবিধা দিচ্ছে সরকার। ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীদের বিশেষ প্রণোদনা দিতে স্কিম কমিটির প্রতিবেদনে তাঁদের ক্ষতি পুষিয়ে দিতে এই সুপারিশ করা হয়। এর মধ্যে ব্রোকারেজ হাউসের ৭ লাখ ৯৬ হাজার ১০৭ জন বিনিয়োগকারী রয়েছে।
স্কিম কমিটির আহ্বায়ক ও ইনভেস্টমেন্ট কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ (আইসিবি) ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মোঃ ফায়েকুজ্জামান জানান, সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা তৈরি করে সিকিউরিটিজ এ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনে (এসইসি) জমা দেয়া হয়েছে। এ ক্ষেত্রে ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীদের আমরা দুই ভাগে ভাগ করে সুপারিশ করেছি। বাজারে স্থিতিশীলতা ফেরানো এবং তাঁদের ধরে রাখতে সুদ মওকুফ ও কোটা সুবিধার কথা বলা হয়েছে।
তিনি আরও বলেন, তদন্তে দেখা গেছে, মার্জিন ঋণ দেয়ার পরিমাণ মার্চেন্ট ব্যাংকগুলোর বেশি। আর ব্রোকারেজ হাউসগুলোতে অনেক কম। তাই ব্রোকারেজ হাউসগুলোকে আইপিওতে কোটা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে বেশি। আর মার্চেন্ট ব্যাংকের ক্ষেত্রে সুদ মওকুফের সুপারিশ করা হয়েছে।
সিকিউরিটিজ এ্যান্ড একচেঞ্জ কমিশনের কাছে জমা দেয়া প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ডিএসই’র ২০৪টি ব্রোকারেজ হাউসের মধ্যে এবি সিকিউরিটিজকে ৬২৬টি বিও হিসাবে ৫০ শতাংশ হিসেবে সুদ মওকুফ করতে হবে ৭৫ লাখ টাকা। এ প্রতিষ্ঠানের ঋণবহির্ভূত ৪০টি হিসাব আইপিওতে কোটা পাবে। এডি হোল্ডিংয়ে ১৯টি বিও হিসাবে সুদ মওকুফ করতে হবে ৪৪ হাজার টাকা ও ৫১টি বিও আইপিওতে কোটা পাবে। একইভাবে এআইবিএল ক্যাপিটেল মার্কেট সার্ভিসে ৮৫৪টি হিসাবে ১ কোটি ৪৬ লাখ ৪৪ হাজার টাকা ও ১ হাজার ৮৬৩ জন আইপিওতে কোটা। একে খান সিকিউরিটিজের ৩৩টি হিসাবে ৩ লাখ ৪৬ হাজার টাকা ও ৪৪ জনের কোটা, আকিজ সিকিউরিটিজে ২৪৯টি হিসাবে ৬১ লাখ টাকা ও ২ হাজার ৬৬ জনের কোটা, এএল সিকিউরিটিজে ২৯টি হিসাবে ৪ লাখ ৮৬ হাজার টাকা ও ৭ হাজার ২২৪ জনের কোটা, আলহাজ সিকিউরিটিজ এ্যান্ড স্টকসের ৩৮টি হিসাবে ৬ লাখ ৩১ হাজার টাকা ও আইপিওতে কোটা ২ হাজার ৯৯৩ জন, এ্যালিয়েন্স সিকিউরিটিজে ২৬টি হিসাবে ৩ লাখ ২১ হাজার টাকা ও ১ হাজার ২৫১ জনের কোটা, এএনএফ ম্যানেজমেন্ট কোম্পানির ৫৭টি হিসাবে ৩৩ লাখ ৫৬ হাজার টাকা ও ১ হাজার ৫১৩ জনের কোটা, এ্যাপেক্স ইনভেস্টমেন্টের ৫৬৬টি হিসাবে ২ কোটি ৬১ লাখ ৫৩ হাজার টাকা ও ২৫ হাজার ৬৪৪ জনের কোটা, এ্যারেনা সিকিউরিটিজের ৩৭০টি হিসাবে ৫২ লাখ ৭৮ হাজার টাকা ও ১ হাজার ৮৪৫ জনের কোটা, ব্যাংক এশিয়া সিকিউরিটিজের ৩৪৬টি হিসাবে ১ কোটি ৪ লাখ টাকা ও ১ হাজার ৬৭৬ জনের কোটা, ব্র্যাক ইপিএল স্টক ব্রোকারেজে ৫১টি হিসাবে ৫ লাখ ৪৪ হাজার টাকা ও ৭ হাজার ৬৯৬ জনের কোটা, বুলবুল সিকিউরিটিজের ৩২৪টি হিসাবে ১ কোটি ৩১ লাখ ৮০ হাজার টাকা ও ৬২০ জনের কোটা, সিএমএমএআরটি সিকিউরিটিজে ৮টি হিসাবে ৩ লাখ টাকা ও ৩৯০ জনের কোটা, কোস্ট টু কোস্ট সিকিউরিটিজে ১০৯টি হিসাবে ১৫ লাখ ৫৬ হাজার টাকা ও ৪২৯ জনের কোটা, কমার্স ব্যাংক সিকিউরিটিজ এ্যান্ড ইনভেস্টমেন্টে ১৫৭টি হিসাবে ৫০ লাখ ৪৮ হাজার টাকা ও ৩ হাজার ২২৮ জনের কোটা, ডিবিএল সিকিউরিটিজে ১৪০টি হিসাবে ৮৭ লাখ ৬১ হাজার টাকা, ডেল্টা ক্যাপিটেল লিমিটেডে ১৩টি হিসাবে ৭ লাখ ৬০ হাজার টাকা ও ৯৬০ জনের কোটা, ডিএসএফএম সিকিউরিটিজে ২০টি হিসাবে ৮ লাখ ৮৯ হাজার টাকা ও ১ হাজার ১০০ জনের কোটা, ইবিএল সিকিউরিটিজে ৭০টি হিসাবে ১০ লাখ ৫৬ হাজার টাকা ও ৬৪ জনের কোটা, এমিনেন্ট সিকিউরিটিজের ৫৩টি হিসাবে ১০ লাখ ৯৩ হাজার টাকা ও ১ হাজার ৭৪২ জনের কোটা, এক্সপো ট্রেডার্সের ৩টি হিসাবে ৯৫ হাজার টাকা ও ৩ হাজার ৭৬৫ জনের কোটা, ফারইস্ট স্টক এ্যান্ড বন্ডের ১ হাজার ৮১৫টি হিসাবে ২ কোটি ৯৪ লাখ ৮৩ হাজার টাকা ও ১২২ জনের কোটা, গ্লোব সিকিউরিটিজে ৭০৮টি হিসাবে ৫৯ লাখ ৬৫ হাজার টাকা ও ১৪ হাজার ২০৩ জনের কোটা, জিএমএফ সিকিউরিটিজে ৩টি হিসাবে ৬১ হাজার টাকা ও ২ হাজার ৫৬৮ জনের কোটা, গ্রিন ডেল্টা সিকিউরিটিজের ৫৩টি হিসাবে ৪৬ লাখ ৫৮ হাজার টাকা ও ৩ হাজার ৯০২ জনের কোটা, গ্রিনল্যান্ড ইকুইটিজের ৪৮টি হিসাবে ১৪ লাখ ৬৮ হাজার টাকা ও ৩ হাজার ৭১৭ জনের কোটা, হ্যাক সিকিউরিটিজে ৩০৫টি হিসাবে ১ কোটি ২ লাখ ৬৬ হাজার টাকা ও ২৬ হাজার ১৬৫ জনের কোটা, হাজী আহমেদ ব্রাদার্স সিকিউরিটিজে ৪টি হিসাবে ১ লাখ টাকা ও ৩ হাজার ৪৫৪ জনের কোটা, হার্পুন সিকিউরিটিজে ৫ হাজার ৬১৫টি হিসাবে ১ কোটি ৯১ লাখ টাকা ও ৬ হাজার ৪৭০ জনের কোটা, আইসিবি সিকিউরিটিজের ২৭৯টি হিসাবে ১ কোটি ৯৫ লাখ ৮৫ হাজার টাকা ও ৬ হাজার ৭৮৪ জনের কোটা, আইএফআইসি সিকিউরিটিজের ৪৬০টি হিসাবে ১ কোটি ১১ লাখ ৩১ হাজার টাকা ও ৭০৬ জনের কোটা, আইআইডিএফসি সিকিউরিটিজের ১ হাজার ৩৩৩টি হিসাবে ২ কোটি ২০ লাখ ৭৪ হাজার টাকা, ইমতিয়াজ হুসাইন সিকিউরিটিজের ২৪৯টি হিসাবে ১৬ লাখ ২৪ হাজার টাকা ও ১ হাজার ৪৪৬ জনের কোটা, ইন্টারন্যাশনাল লিজিং সিকিউরিটিজের ৯১৬টি হিসাবে ২ কোটি ২২ লাখ ৪৬ হাজার টাকা ও ১ হাজার ৯৬৪ জনের কোটা, ইনভেস্টমেন্ট প্রমোশন সার্ভিসের ৬৬৪টি হিসাবে ৩২ লাখ ৫৪ হাজার টাকা ও ২ হাজার ৭৯১ জনের কোটা, আইল্যান্ড সিকিউরিটিজে ৪ হাজার ১৪৯টি হিসাবে ২৪ লাখ ৪০ হাজার টাকা ও ৬ হাজার ৭৫৫ জনের কোটা, জয়তুন সিকিউরিটিজে ৬৬টি হিসাবে ১৫ লাখ ১৯ হাজার টাকা ও ৫ হাজার ৯৮০ জনের কোটা, লঙ্কাবাংলা সিকিউরিটিজে ১ হাজার ৭৭৪টি হিসাবে ৪৯ লাখ ৫৫ হাজার টাকা ও ২ হাজার ১৪৩ জনের কোটা, এম জুবায়ের সিকিউরিটিজে ২৩টি হিসাবে ৪ লাখ ৩০ হাজার টাকা ও ৫ হাজার ১৫৭ জনের কোটা, মার্কেন্টাইল ব্যাংক সিকিউরিটিজে ১ হাজার ৯৯৫টি হিসাবে ৩ কোটি ৫৪ লাখ ৮৩ হাজার টাকা ও ৯১৯ জনের কোটা, মিডওয়ে সিকিউরিটিজে ২টি হিসাবে ২৭ হাজার টাকা ও ৫ হাজার ৩৪৮ জনের কোটা, মাইকা সিকিউরিটিজের ৮৭৬টি হিসাবে ৩৪ লাখ টাকা ও ৪ হাজার ৯২৮ জনের কোটা, মিরর ফিন্যান্সিয়াল ম্যানেজমেন্টের ৭৫৬টি হিসাবে ৭৭ লাখ ৮৪ হাজার টাকা ও ৬১০ জনের কোটা, এমএল সিকিউরিটিজে ৫৪টি হিসাবে ১২ লাখ ৭৯ হাজার টাকা ও ৩ হাজার ২৯৪ জনের কোটা, এমটিবি সিকিউরিটিজের ২৯৩টি হিসাবে ৭৫ লাখ টাকা ও ১৫ হাজার ৯০ জনের কোটা, এনবিএল সিকিউরিটিজের ১ হাজার ১৪টি হিসাবে ৩ কোটি ৩৫ লাখ ৩৪ হাজার টাকা ও ৭৯২ জনের কোটা, এনসিসি সিকিউরিটিজের ২২১টি হিসাবে ১ কোটি ৬৮ লাখ ৯৭ হাজার টাকা ও ৩ হাজার ৩৭৫ জনের কোটা, পার্কওয়ে সিকিউরিটিজের ৭টি হিসাবে ৯৪ হাজার টাকা ও ৮ হাজার ৪২৭ জনের কোটা, পিপলস ইকুইটির ১১টি হিসাবে ৮৮ হাজার টাকা ও ৪২২ জনের কোটা, পিএফআই সিকিউরিটিজে ২৬১টি হিসাবে ১ কোটি ৫ লাখ ৩৪ হাজার টাকা ও ১০৫ জনের কোটা, ফিনিক্স সিকিউরিটিজে ৮২২টি হিসাবে ১ কোটি ৪৯ লাখ টাকা ও ২ হাজার ৬০৭ জনের কোটা, পিএইচপি স্টকসে ৮৮টি হিসাবে ১ লাখ ৩০ হাজার টাকা ও ৬০১ জনের কোটা, প্রাইম ব্যাংক সিকিউরিটিজে ৫১টি হিসাবে ২ লাখ টাকা ও ১৭ জনের কোটা, প্রাইম ইসলামী সকিউরিটিজে ৭৬টি হিসাবে ১১ লাখ ২০ হাজার টাকা ও ২৯ জনের কোটা, পূবালী ব্যাংক সিকিউরিটিজে ৫১টি হিসাবে ১৮ লাখ ৩১ হাজার টাকা ও ৬০৬ জনের কোটা, রিলায়েন্স ব্রোকারেজ সার্ভিসে ১ হাজার ৭৪২টি হিসাবে ৪৩ লাখ ৯৬ হাজার টাকা ও ১ হাজার ৭৩৮ জনের কোটা, এসএআর সিকিউরিটিজে ৮০টি হিসাবে ৪ লাখ ৮৪ হাজার টাকা ও ১ হাজার ৮৩৮ জনের কোটা, এসসিএল সিকিউরিটিজে ১৪৯টি হিসাবে ১ কোটি ৩১ লাখ ৪২ হাজার টাকা ও ২ হাজার ৪১৫ জনের কোটা, শাহ্জালাল ইসলামী ব্যাংক সিকিউরিটিজে ৯৭৬টি হিসাবে ১ কোটি ৪০ লাখ ৭৫ হাজার টাকা ও ৩ হাজার ৭৬৫ জনের কোটা, শাকিল রিজভী স্টকের ১৩টি হিসাবে ৪ লাখ ১২ হাজার টাকা ও ৯ হাজার ৩৯৯ জনের কোটা, শার্প সিকিউরিটিজে ৫৬টি হিসাবে ৭ লাখ ৯৯ হাজার টাকা ও ৩ হাজার ১৬৭ জনের কোটা, সিনহা সিকিউরিটিজে ২১টি হিসাবে ৪ লাখ ৪৮ হাজার টাকা ও ৭ হাজার ৭৮ জনের কোটা, স্কয়ার সিকিউরিটিজে ৭৯টি হিসাবে ২৪ লাখ ৪৮ হাজার টাকা ও ৬ হাজার ১৯৭ জনের কোটা, স্টক এ্যান্ড বন্ড লিমিটেডে ২ হাজার ৩৩টি হিসাবে ২০ লাখ টাকা ও ৯২৭ জনের কোটা, টাইমস সিকিউরিটিজের ১৫৬টি হিসাবে ৪৪ লাখ ৮৯ হাজার টাকা ও ৭৩৬ জনের কোটা, ট্রান্সকন সিকিউরিটিজের ৩২টি হিসাবে ২১ লাখ ৮২ হাজার টাকা ও ১ হাজার ৪৯ জনের কোটা, ট্রাস্টি সিকিউরিটিজে ৫১টি হিসাবে ২৬ লাখ ৭৭ হাজার টাকা ও ৬৬৩ জনের কোটা, ইউজিসি সিকিউরিটিজে ৯টি হিসাবে ৩ লাখ ৮১ হাজার টাকা, ইউনিক শেয়ার ম্যানেজমেন্টে ১৯৭টি হিসাবে ২৪ লাখ ৫৪ হাজার টাকা, ইউনিরয়েল সিকিউরিটিজে ৪৯৬টি হিসাবে ২ লাখ ৫৭ হাজার টাকা ও ১ হাজার ২১৮ জনের কোটা এবং সর্বশেষ ওয়াইফাং সিকিউরিটিজে ১৮টি হিসাবে সুদ মওকুফ করতে হবে ৩ লাখ ৭৬ হাজার টাকা ও তাদের ৬ হাজার ৩১১ জন আইপিওতে কোটা পাবেন।
চট্টগ্রাম স্টক একচেঞ্জের স্টক ব্রোকার ১০৩টি ব্রোকারেজ হাউসের মধ্যে এএ সিকিউরিটিজকে ১ হাজার ৩টি বিও হিসাবে সুদ মওকুফ করতে হবে ৮ লাখ ৪৮ হাজার টাকা ও আইপিওতে কোটা পাবেন ৮ হাজার ৪০৫ জন। একইভাবে একে খান সিকিউরিটিজে ১২টি হিসাবে ২৭ হাজার টাকা ও ২৭ জনের কোটা, আলফা সিকিউরিটিজে ২২৮টি হিসাবে ১ লাখ ৩৪ হাজার টাকা ও ১৮১ জনের কোটা, এ্যাসোসিয়েট ক্যাপিটেল সিকিউরিটিজে ২৫২টি হিসাবে ৩৪ লাখ ৮০ হাজার টাকা ও ৩ হাজার ৪৩৬ জনের কোটা, চিটাগাং ক্যাপিটেল লিমিটেডের ২ হাজার ২০২টি হিসাবে ৫৬ লাখ ৯৬ হাজার টাকা ও ১৬ জনের কোটা, কর্ডিয়াল সিকিউরিটিজে ৪৭৩টি হিসাবে ৫ লাখ ৭৩ হাজার টাকা ও ৭৭৯ জনের কোটা, ইস্টার্ন শেয়ার্স এ্যান্ড সিকিউরিটিজে ৭৭৬টি হিসাবে ২৯ লাখ টাকা ও ৮ হাজার ৩৭৩ জনের কোটা, ফারইস্ট শেয়ার্স এ্যান্ড সিকিউরিটিজে ৭৫টি হিসাবে ২৩ লাখ ৪৬ হাজার টাকা ও ২ হাজার ২৩৫ জনের কোটা, হলমার্ক সিকিউরিটিজে ১ হাজার ৫৪১টি হিসাবে ৩ লাখ ৩২ হাজার টাকা ও ১ হাজার ১১৬ জনের কোটা, হাসান শেয়ার্স এ্যান্ড সিকিউরিটিজের ৩৭টি হিসাবে ১০ লাখ ২১ হাজার টাকা ও ১ হাজার ২২১ জনের কোটা, আইএসপিআই সিকিউরিটিজের ৬৯টি হিসাবে ৪ লাখ টাকা, কবির সিকিউরিটিজে ২৯টি হিসাবে ৪ লাখ ৯১ হাজার টাকা ও ২৯ হাজার ৪৩৪ জনের কোটা, কিশোর সিকিউরিটি ইনভেস্টমেন্টে ২৩টি হিসাবে ৩ লাখ ৭০ হাজার টাকা ও ২২ জনের কোটা, লোটাস শেয়ার্স এ্যান্ড সিকিউরিটিজে ৪৮টি হিসাবে ৪৭ হাজার টাকা ও ১১৫ জনের কোটা, মুনতাহা শেয়ার্স এ্যান্ড ক্যাপিটেলের ১৩৫টি হিসাবে ২১ লাখ ৫০ হাজার টাকা ও ১০৭ জনের কোটা, নর্থ ওয়েস্ট সিকিউরিটিজের ৪৯০টি হিসাবে ২ লাখ ৭৬ হাজার টাকা ও ৩ হাজার ৫৫৫ জনের কোটা, প্রিমিয়ার লিজিং সিকিউরিটিজে ২৯৯টি হিসাবে ১৯ লাখ ৫৬ হাজার টাকা ও ১৮৪ জনের কোটা, সালতা ক্যাপিটেলে ১৭টি হিসাবে ৯২ হাজার টাকা ও ১ হাজার ৩১৫ জনের কোটা, এসইএস কোম্পানির ২৭১টি হিসাবে ১৮ লাখ ৫২ হাজার টাকা ও ৩৮১ জনের কোটা, স্কিজ সিকিউরিটিজে ৩১১টি হিসাবে ৫১ লাখ ৭২ হাজার টাকা, সোহেল সিকিউরিটিজে ৪২৬টি হিসাবে ১ কোটি ৪১ হাজার টাকা ও ২ হাজার ১৪৮ জনের কোটা, সুপার শেয়ার্স এ্যান্ড সিকিউরিটিজে ২০টি হিসাবে ৫ লাখ ৭৫ হাজার টাকা ও ৭৭৩ জনের কোটা, টিকে শেয়ার্স এ্যান্ড সিকিউরিটিজের ২৩৬টি হিসাবে ৩৫ লাখ ৪০ হাজার টাকা ও ৫৭৪ জনের কোটা, ভ্যানগার্ড শেয়ার্স এ্যান্ড সিকিউরিটিজে ১ হাজার ৭৪৭টি হিসাবে ৪৪ লাখ ৬৬ হাজার টাকা এবং সর্বশেষ ভ্যানটেজ সিকিউরিটিজে ১৫টি হিসাবে সুদ মওকুফ করতে হবে ৪ লাখ ৭৯ হাজার টাকা ও আইপিওতে তাঁরা কোটা পাবেন ৩ হাজার ১৫৬ জন।

সূত্র: দৈনিক জনকণ্ঠ, ২৭ মে ২০১২

This entry was posted in News and tagged on by .

About bdipo Team

Started our journey in Jan 2009. A simple idea is getting bigger. A baby born and learning to walk, talk, imitate and express. This page is dedicated to that eternal urge of expression. The humane and emotional side of bdipo.