Monthly Archives: March 2019

তালিকাভুক্তির অনুমোদন পেয়েছে এস্কয়ার নিট কম্পোজিট

নিজস্ব প্রতিবেদক: পুঁজিবাজার থেকে প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে অর্থ উত্তোলন করা বস্ত্র খাতের কোম্পানি এস্কয়ার নিট কম্পোজিট লিমিটেড ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে তালিকাভুক্তির অনুমোদন পেয়েছে।তবে এখনও লেনদেন শুরুর তারিখ নির্ধারণ করা হয়নি। স্টক একচেঞ্জে সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

কোম্পানির আইপিও লটারিতে বরাদ্দ পাওয়া শেয়ার সিডিবিএলের মাধ্যমে গত ৭ মার্চ (বৃহস্পতিবার) বিনিয়োগকারীদের নিজ নিজ বিও হিসাবে জমা হয়েছে।

এর আগে গত ৭ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে সকাল সাড়ে ১০টায় কোম্পানির আইপিও লটারি অনুষ্ঠিত হয়। আর গত ৬ জানুয়ারি থেকে ২০ জানুয়ারি পর্যন্ত কোম্পানিটির আইপিওতে আবেদন গ্রহণ করা হয়।

গত বছরের ২৭ নভেম্বর বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে ৩ কোটি ৪৮ লাখ ৯৫ হাজার ৮৩৩ টি সাধারণ শেয়ার প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে ইস্যু করার অনুমোদন দেয় কমিশন।

https://www.facebook.com/groups/1259066044108520/

কোম্পানির ১ কোটি ৪ লাখ ৬২ হাজার ৫০১ টি সাধারণ শেয়ার ৪০ টাকা মূল্যে (প্রান্ত সীমা মূল্য থেকে ১০ শতাংশ বাট্টায়) সাধারণ বিনিয়োগকারীদের নিকট বিক্রি করা হবে। এছাড়া বুক বিল্ডিং পদ্ধতির মাধ্যমে ৩ কোটি ৪৮ লাখ ৯৫ হাজার ৮৩৩টি শেয়ারের মধ্যে ২ কোটি ৮ লাখ ৩৩ হাজার ৩৩২টি শেয়ার ৪৫ টাকা মূল্যে যোগ্য বিনিয়োগকারীদের নিকট ইস্যু করা হবে।

গত ৯ জুলাই সোমবার থেকে এই নিলাম শুরু হয়ে চলে ১২ জুলাই বিকেল ৫টা পর্যন্ত। নিলামে কোম্পানিটির কাট-অফ প্রাইস নির্ধারণ করা হয় ৪৫ টাকায়। গত ২৩ জানুয়ারি মঙ্গলবার বিএসইসির কমিশন সভায় কোম্পানিটিকে শেয়ার দর নির্ধারণের জন্য বিডিংয়ের অনুমোদন দেওয়া হয়।

জানা গেছে, এস্কয়ার নিট কম্পোজিট লিমিটেড আইপিওর মাধ্যমে বাজার থেকে ১৫০ কোটি টাকা উত্তোলন করবে। আইপিওর মাধ্যমে সংগ্রহ করা টাকায় কোম্পানিটি ব্যবসা সম্প্রসারণ, ভবন নিমার্ণ, ডাইং ও ওয়াশিং প্লান্টের জন্য যন্ত্রপাতি কিনবে।

পুঁজিবাজার থেকে সংগৃহীত অর্থের মধ্যে ভবন নির্মাণে ব্যয় করা হবে ১০০ কোটি ৪২ লাখ টাকা। নারায়ণগঞ্জের কাঁচপুর এবং ময়মনসিংহের ভালুকায় এ ভবন নির্মিত হবে। কোম্পানিটির কাঁচপুর প্রকল্পের জন্য ডাইং মেশিনারিজ কিনতে খরচ হবে ২১ কোটি ২৩ লাখ ১৯ হাজার টাকা। একই সঙ্গে কাঁচপুরে কেনা হবে ওয়াশিং প্লান মেশিনারিজ। যার জন্য ব্যয় হবে ২১ কোটি ৯০ লাখ ৭৬ হাজার টাকা। আর আইপিও বাবদ খরচ করা হবে ৬ কোটি ৪৩ লাখ ৮৮ হাজার টাকা

https://www.facebook.com/groups/1259066044108520/

এস্কয়ার নিট কম্পোজিটের প্রতিটি শেয়ারের অভিহিত মূল্য ১০ টাকা। ২০১৬ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত কোম্পানির অনুমোদিত মূলধন ছিল ২০০ কোটি টাকা। আর পরিশোধিত মূলধন ছিল ১০০ কোটি টাকা

এস্কয়ার নিট কম্পোজিট ২০০০ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। কোম্পানিটিতে নিটিং, প্রিন্টিং, এমব্রয়ডায়রি, লন্ড্রি ও গার্মেন্টস ইউনিট রয়েছে।

কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে প্রাইম ফাইন্যান্স ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড। আর রেজিস্ট্রার টু দ্য ইস্যুর দায়িত্বে রয়েছে আইসিবি ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড।

শেয়ারনিউজ; ১০ মার্চ ২০১৯

আইপিও’র অর্থ শতভাগ ব্যবহার করেছে ভিএফএস থ্রেড

নিজস্ব প্রতিবেদক: ভিএফএস থ্রেড ডায়িং প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে উত্তোলিত অর্থের শতভাগ টাকা ব্যবহার করেছে। নির্ধারিত সময়ের অনেক আগেই কোম্পানিটি অর্থ ব্যবহার সম্পন্ন করেছে। ডিএসই সূত্রে জানা যায়।

কোম্পানি জানিয়েছে, আইপিও মাধ্যমে উত্তোলিত অর্থের মাধ্যমে কোম্পানিটি নতুন যন্ত্রপাতির সেট আপ সফলভাবে বাস্তবায়ন করেছেন।

মেশিনটি প্রতি বছর ১৯ লাখ ৭২ হাজার ৭১ এলবিএস পাউন্ড প্রকল্পটির উৎপাদন ক্ষমতা বাড়িয়ে তুলবে। কোম্পানির বিক্রয় আয় প্রতি বছর প্রায় ১৩৫ কোটি টাকা

https://www.facebook.com/groups/1259066044108520/

এবং সর্বোত্তম ব্যবহার করার পরে ২২ কোটি টাকা লাভ হবে। মেশিনটি ইনস্টল করার আগে, প্রতি বছর উৎপাদন ক্ষমতা ৪৩ লাখ ৮২ হাজার ৩৮০ এলবিএস পাউন্ড ছিল। যন্ত্রপাতটি কোরিয়ান এবং জার্মানের স্বয়ংক্রিয় ব্র্যান্ড নিউ থ্রেড ম্যানুফ্যাকচারিং মেশিন।

কোম্পানিটি পুঁজিবাজারে ২ কোটি ২০ লাখ শেয়ার ছেড়ে ২২ কোটি টাকা উত্তোলন করেছে। এজন্য প্রতিটি শেয়ারের ইস্যু মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১০ টাকা।

উল্লেখ্য, কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে সিটিজেন সিকিউরিটিজ অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট ও ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ক্যাপিটাল অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড।

শেয়ারনিউজ; ১০ মার্চ ২০১৯

আজ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করবে ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো

নিজস্ব প্রতিবেদক: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত খাদ্য ও আনুষাঙ্গিক খাতের কোম্পানি ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো বাংলাদেশ কোম্পানি লিমিটেড পরিচালনা পর্ষদ সভার তারিখ ঘোষণা করেছে। ঘোষণা অনুযায়ী আজ অনুষ্ঠিত হবে এ কোম্পানির বোর্ড সভা। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র মতে, বিএটিবিসির বোর্ড সভা ১১ মার্চ, বিকেল ৪টায় অনুষ্ঠিত হবে। সভায় ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৮ সমাপ্ত অর্থবছরের নীরিক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনার পাশাপাশি বিনিয়োগকারীদের জন্য ডিভিডেন্ড ঘোষণা আসতে পারে বলে জানা গেছে।

শেয়ারনিউজ; ১১ মার্চ ২০১৯

নিউ লাইন ক্লোথিংসের আইপিওতে রেকর্ড আবেদন

নিজস্ব প্রতিবেদক: পুঁজিবাজার থেকে অর্থ উত্তোলনের অনুমোদন পাওয়া নিউ লাইন ক্লোথিংসের প্রাথমিক গণপ্রস্তাবে (আইপিও) প্রাতিষ্ঠানিক বা যোগ্য বিনিয়োগকারীদের রেকর্ড পরিমাণ আবেদন জমা পড়েছে। যা এর আগে অন্য কোন কোম্পানির আইপিওতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের এতো আবেদন জমা পড়ে নাই।

নিউ লাইনের আইপিওতে আবেদন সংগ্রহ করা হয় গত ২৮ ফেব্রুয়ারি থেকে ৩ মার্চ পর্যন্ত। ওইসময় কোম্পানিটির শেয়ার কেনার জন্য আইপিওতে ৮৯৯টি প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান থেকে আবেদন করা হয়েছে। যা অন্য যেকোন কোম্পানির চেয়ে বেশি। দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা জেনেক্স ইনফোসিসে ৮৪৩টি ও তৃতীয় স্থানে থাকা এসএস স্টিলে ৮২৮টি প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান থেকে আবেদন করা হয়। এরপরে অবস্থানে থাকা কাট্টালি টেক্সটাইলে ৭৭১টি ও ইন্দো-বাংলা ফার্মাসিউটিক্যালসে ৭৫৭টি প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান থেকে আবেদন করা হয়।

নিউ লাইন ক্লোথিংসের জন্য পুঁজিবাজারে ৩ কোটি শেয়ার ইস্যুর মাধ্যমে ৩০ কোটি টাকা উত্তোলন করা হবে। এরমধ্যে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের জন্য বরাদ্দ ৫০ শতাংশ বা ১৫ কোটি টাকা। এই ১৫ কোটি টাকার বিপরীতে ৮৯৯টি প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান থেকে ২৬২ কোটি ৬৯ লাখ ৯০ হাজার টাকার আবেদন করা হয়েছে। এক্ষেত্রে চাহিদার ১৭.৫১ গুণ বা ১৭৫১ শতাংশ আবেদন জমা পড়েছে।

গত ২৭ নভেম্বর বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৬৬৭তম সভায় কোম্পানিটিকে এ অর্থ উত্তোলনের অনুমোদন দেয়া হয়। এজন্য প্রতিটি শেয়ারের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১০ টাকা। পুঁজিবাজার থেকে উত্তোলিত অর্থ দিয়ে কোম্পানিটি যন্ত্রপাতি ও কলকব্জা ক্রয়, কারখানা ভবন সম্প্রসারণ, মেয়াদী ঋণ পরিশোধ এবং আইপিও খরচ খাতে ব্যয় করবে।

নিউ লাইনের ২০১৬-১৭ অর্থবছরে শেয়ারপ্রতি মুনাফা (ইপিএস) হয়েছে ১.৮৫ টাকা। আর ২০১৭ সালের ৩০ জুন পুন:মূল্যায়নসহ নীট সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ৩১.৬৩ টাকায় এবং পুন:মূল্যায়ন ছাড়া এনএভিপিএস দাঁড়িয়েছে ২০.৫২ টাকায়।

আইপিওতে কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে বানকো ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট, সন্ধানী লাইফ ফাইন্যান্স এবং সাউথইস্ট ব্যাংক ক্যাপিটাল সার্ভিসেস।

শেয়ারনিউজ; ০৫ মার্চ ২০১৯

২৪ মার্চ নিউ লাইন ক্লোথিংসের আইপিও লটারি ড্র

নিজস্ব প্রতিবেদক: আবেদনকারীদের মধ্যে শেয়ার বরাদ্দ দেওয়ার জন্য নিউ লাইন ক্লোথিংসের প্রাথমিক গণপ্রস্তাব (আইপিও) লটারি ড্র আগামী ২৪ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে। কোম্পানি সুত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে ওইদিন সকাল ১০ টায় রাজধানীর রমনাতে অবস্থিত ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশনে এই লটারি ড্র অনুষ্ঠিত হবে।

কোম্পানিটির আইপিওতে ১৮ থেকে ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত আবেদন গ্রহণ করা হয়।

কোম্পানিটি শেয়ারবাজারে ৩ কোটি শেয়ার ইস্যুর মাধ্যমে ৩০ কোটি টাকা উত্তোলনের অনুমোদন পেয়েছে। গত ২৭ নভেম্বর বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৬৬৭তম সভায় কোম্পানিটিকে এ অর্থ উত্তোলনের অনুমোদন দেয়া হয়। এজন্য প্রতিটি শেয়ারের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১০ টাকা।

শেয়ারবাজার থেকে উত্তোলিত অর্থ দিয়ে কোম্পানিটি যন্ত্রপাতি ও কলকব্জা ক্রয়, কারখানা ভবন সম্প্রসারণ, মেয়াদী ঋণ পরিশোধ এবং আইপিও খরচ খাতে ব্যয় করবে।

৩০ জুন ২০১৭ পর্যন্ত আর্থিক বিবরণী অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি মুনাফা (ইপিএস) হয়েছে ১.৮৫ টাকা। একই সময়ে পর্যন্ত কোম্পানিটির পুন:মূল্যায়নসহ নীট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ৩১.৬৩ টাকা এবং পুন:মূল্যায়ন ছাড়া নীট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ২০.৫২ টাকায়।

আইপিওতে কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে বানকো ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট, সন্ধানী লাইফ ফাইন্যান্স এবং সাউথইস্ট ব্যাংক ক্যাপিটাল সার্ভিসেস।

শেয়ারনিউজ; ০৪ মার্চ ২০১৯