Monthly Archives: May 2016

ইয়াকিন পলিমারের আইপিও অনুমোদন

ইয়াকিন পলিমার লিমিটেডের প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) অনুমোদন দিয়েছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। বিএসইসির ৫৭৩তম কমিশন সভায় বৃহস্পতিবার (১৯ মে) এ কোম্পানির আইপিও অনুমোদন দেওয়া হয়। এক প্রেস‌ বিজ্ঞপ্তি‌তে এ তথ্য জানা‌নো হ‌য়ে‌ছে। ইয়াকিন পলিমার লিমিটেড পুঁজিবাজারে ২ কোটি শেয়ার ছেড়ে ২০ কোটি টাকা সংগ্রহ করবে। কোম্পানিটির অভিহিত মূল্য ১০ টাকা। কোম্পানিটির ইস্যু ম্যানেজার হিসেবে কাজ করছে ইম্পেরিয়াল ক্যাপিটাল লিমিটেড এবং ফাস ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড। ৩০ জুন, ২০১৫ হিসাব বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ১ টাকা ৪১ পয়সা। আর শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ১৪ টাকা ৬১ পয়সা।

২০ কো‌টি টাকা দিয়ে মেশিনারিজ ক্রয়, কারখানা ও প্রশাসনিক ভবন নির্মাণ এবং আনুষঙ্গিক খাতে ব্যয় করবে কোম্পানিটি।

(দ্য রি‌পোর্ট/এন‌টি/এনআই/মে ১৯, ২০১৬)

একমি ল্যাবরেটরিজের আইপিও লটারির ড্রয়ের তারিখ নির্ধারণ

বুক বিল্ডিং পদ্ধীতেতে প্রাথমিক গণ প্রস্তাবের (আইপিও) আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা ঔষুধ ও রসায়ন খাতের কোম্পানি দ্য একমি ল্যাবরেটরিজ লিমিটেড লটারির ড্র-এর তারিখ নির্ধারণ করেছে। কোম্পানির আইপিও লটারির ড্র আগামী ১৫ মে রোববার সকাল ১০ টায় রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ারিং ইন্সটিটিউট, ঢাকায় অনুষ্ঠিত হবে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জারনা গেছে। একমি ল্যাবরেটরিজের প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) আবেদন গত ১১ এপ্রিল থেকে শুরু হয়ে ২১ এপ্রিল পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হয়। কোম্পানিটি বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে পুঁজিবাজারে তালিকাভূক্ত হতে যাচ্ছে। এর আগে বিএসইসির ৫৬৭তম কমিশন সভায় দ্য একমি ল্যাবরেটরিজ লিমিটেডকে বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে আইপিও অনুমোদন দেয়া হয়। ইলিজিবল ইনভেষ্টররা এ কোম্পানির প্রতিটি শেয়ার ৮৫.২০ টাকায় (৭৫.২০ টাকা প্রিমিয়াম) পাবে। এছাড়া সাধারণ বিনিয়োগকারী,ক্ষতিগ্রস্ত ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারী এবং নন-রেসিডেন্ট বাংলাদেশী (এনআরবি) বিনিয়োগকারীরা প্রতিটি শেয়ার কাট-অফ মূল্যের ১০ শতাংশ কমে ৭৭ টাকায় আইপিও আবেদন করেন। জানা যায়, একমি ল্যাবরেটরিজ ৫ কোটি সাধারণ শেয়ারের মধ্যে ১০ শতাংশ অর্থাৎ ২ কোটি ৫০ লাখ শেয়ার যোগ্য প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের (ইলিজিবল ইন্সটিটিউশন ইনভেস্টরস) জন্য এবং ১০ শতাংশ অর্থাৎ ৫০ লাখ শেয়ার মিউচ্যুয়াল ফান্ডের জন্য যার প্রতিটি শেয়ার কাট-অফ মূল্যে অর্থাৎ ৮৫.২০ টাকায় সংরক্ষিত। অবশিষ্ট ৪০ শতাংশ অর্থাৎ ২ কোটি শেয়ার সাধারণ বিনিয়োগকারী, ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারী এবং এনআরবিদের জন্য যার প্রতিটি শেয়ার কাট-অফ মূল্যের ১০ শতাংশ কম মূল্য ৭৭ টাকায় ইস্যুর জন্য অনুমোদন দিয়েছে বিএসইসি। উল্লেখ্য, কাট-অফ মূল্য নির্ধারণের বিডিংয়ের নির্দিষ্ট শেয়ার সংখ্যার ৩.৯০ গুন শেয়ারের আবেদন পড়ে ৮৫.২০ টাকা মূল্যে। এই আইপিওর মাধ্যমে কোম্পানিটি ৪০৯ কোটি ৬০ লাখ টাকা পুঁজি উত্তোলন করে ৩টি নতুন প্রকল্প বাস্তবায়ন এবং প্রাথমিক গণ প্রস্তাবের খরচ খাতে ব্যয় করবে। কোম্পানিটির বিগত ৫ বছরের (১ জুলাই,২০১০ থেকে ৩০ জুন ২০১৫ পর্যন্ত) নিরীক্ষিত বিবরণী অনুযায়ী শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪.০৭ টাকা (ওয়েটেড) এবং ৩০ জুন ২০১৫ সমাপ্ত অর্থবছরের হিসাব অনুযায়ী শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৫.৭০ টাকা। ৩০ জুন ২০১৫ সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানির নিট অ্যাসেট ভ্যালু (এনএভি) ৭০.৩৭ টাকা। কোম্পানির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে আইসিবি ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড এবং রেজিষ্টার টু দি ইস্যুর দায়িত্বে নিয়োজিত রয়েছে প্রাইম ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড।

শেয়ারনিউজ২৪/ডেস্ক/১৫:১০