Monthly Archives: April 2015

আমান ফিডের আবেদন শুরু ২৫ মে

প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) অনুমোদন পাওয়া আমান ফিডের আবেদন গ্রহণ শুরু ২৫ মে থেকে। কোম্পানি সূত্রে জানা গেছে।

আমান ফিড পুঁজিবাজার থেকে ৭২ কোটি টাকা উত্তোলন করবে। ১০ টাকা অভিহিত মূল্যের সঙ্গে ২৬ টাকা প্রিমিয়ামসহ শেয়ারপ্রতি মোট ৩৬ টাকা করে উত্তোলন করবে। এ জন্য দুই কোটি শেয়ার ইস্যু করবে।

(দ্য রিপোর্ট/আরএ/এজেড/এপ্রিল ২৯, ২০১৫)

 

তসরিফা ইন্ডাস্ট্রিজের আইপিও লটারি চলছে

তসরিফা ইন্ডাস্ট্রিজের প্রাথমিক গণপ্রস্তাবে (আইপিও) আবেদনকারীদের মধ্যে শেয়ার বরাদ্দের জন্য লটারি চলছে। সোমাবার সকাল সাড়ে ১০ টায় রাজধানির ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটে এ লটারি শুরু হয়।

কোম্পানিটির আইপিওতে চাহিদার তুলনায় ৯.৫ গুণ বেশি আবেদন জমা পড়ে। চাহিদার তুলনায় আবেদন বেশি জমা পড়ায় কোম্পানির শেয়ার বরাদ্দে লটারি অনুষ্ঠিত হচ্ছে। লটারির মাধ্যমে বিজয়ীরা কোম্পানির শেয়ার বরাদ্দ পাবেন।

এদিকে লটারি অনুষ্ঠানে উপস্থিত রয়েছেন তসরিফা ইন্ডাষ্ট্রিজের প্রধান অর্থ কর্মকর্তা জিল্লুর রহমান, কোম্পানি সচিব মো. হায়দারসহ কোম্পানির অন্যান্য কর্মকর্তারা। এ ছাড়া ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের প্রতিনিধিরা উপস্থিত রয়েছেন।

কোম্পানিটি ৬৩ কোটি ৮৭ লাখ ২১ হাজার টাকা সংগ্রহে বাজারে শেয়ার ছাড়ে। চাহিদার বিপরীতে আবেদন পড়েছে ৬৭০ কোটি ৩৬ লাখ ৯৪ হাজার ৪ শত টাকার।

এরমধ্যে সাধারণ বিনিয়োগকারীরা আবেদন করে ৫১৬ কোটি ২২ লাখ ১৬ হাজার ৮ শত টাকার। ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীরা ৫১ কোটি ১২ লাখ ২৭ হাজার ৬ শত, প্রবাসী বাংলাদেশীরা ২১ কোটি ৪০ লাখ ৩২ হাজার ও মিউচুয়াল ফান্ড ৮১ কোটি ৬২ লাখ ১৮ হাজার টাকার আবেদন করে।

২৪ মার্চ কোম্পানিটির আইপিও আবেদন শুরু হয়। ৩১ মার্চে তা শেষ হয়। তবে প্রবাসী বাংলাদেশীদের জন্য আবেদনের সময় ছিল ৯ এপ্রিল পর্যন্ত।

কোম্পানিটি ১০ টাকা অভিহিত মূল্যের সাথে ১৬ টাকা প্রিমিয়ামে অর্থাৎ ২৬ টাকা মূল্যে শেয়ার ইস্যুর অনুমোদন পায়। এই মূল্যে ২ কোটি ৪৫ লাখ ৬৬ হাজার ২শ’ শেয়ার ইস্যু করেছিল।

(দ্য রিপোর্ট/আরএ/এমকে/এপ্রিল ২৭,২০১৫)

 

বাংলাদেশ স্টিল রি-রোলিং মিলসের লেনদেন শুরু সোমবার

বাংলাদেশ স্টিল রি-রোলিং মিলস লিমিটেডের লেনদেন শুরু হচ্ছে ২৭ এপ্রিল, সোমবার। ‘এন’ ক্যাটাগরির আওতায় এ লেনদেন শুরু হবে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বাংলাদেশ স্টিল রি-রোলিং মিলসের ডিএসইতে ট্রেডিং কোড হবে বিএসআরএমএলটিডি ও কোম্পানি কোড নম্বর ১৩২৩৮।

এর আগে কোম্পানিটি প্রাথমিক গণপ্রস্তাবে (আইপিও) ১ হাজার ২৩২ কোটি ৩৮ লাখ টাকার আবেদন জমা পড়ে। যা কোম্পানির চাহিদার তুলনায় ২০.১২ গুণ বেশি।শেয়ার বরাদ্দে গত ৫ মার্চ লটারি অনুষ্ঠিত হয়।

উল্লেখ্য, গত ১ ফেব্রুয়ারি থেকে ৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বিএসআরএম স্টিলের আইপিও আবেদন জমা নেওয়া হয়। আর প্রবাসী বিনিয়োগকারীদের জন্য এই সুযোগ ছিল ১৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। কোম্পানিটি পুঁজিবাজারে ১ কোটি ৭৫ লাখ শেয়ার ছেড়ে ৬১ কোটি ২৫ লাখ টাকা সংগ্রহ করে। ১০ টাকা অভিহিতমূল্যের সঙ্গে ২৫ টাকা প্রিমিয়ামসহ ৩৫ টাকায় কোম্পানিটি শেয়ার ইস্যুর অনুমোদন দেয় বিএসইসি।

(দ্য রিপোর্ট/আরএ/এইচ/এপ্রিল ২৬, ২০১৫)

 

তসরিফা ইন্ডাস্ট্রিজের আইপিওতে সাড়ে ৯ গুণ বেশি আবেদন

তসরিফা ইন্ডাস্ট্রিজের প্রাথমিক গণপ্রস্তাবে (আইপিও) ৯.৫ গুণ বেশি আবেদন জমা পড়েছে। ৬৩ কোটি ৮৭ লাখ ২১ হাজার টাকার বিপরীতে আবেদন পড়েছে ৬৭০ কোটি ৩৬ লাখ ৯৪ হাজার ৪ শত টাকার। চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সাধারণ বিনিয়োগকারীরা আবেদন করেছে ৫১৬ কোটি ২২ লাখ ১৬ হাজার ৮ শত টাকার। এ ছাড়া ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীরা ৫১ কোটি ১২ লাখ ২৭ হাজার ৬ শত, প্রবাসী বাংলাদেশীরা ২১ কোটি ৪০ লাখ ৩২ হাজার ও মিউচুয়াল ফান্ড ৮১ কোটি ৬২ লাখ ১৮ হাজার টাকার আবেদন করেছে।

২৪ মার্চ কোম্পানিটির আইপিও আবেদন শুরু হয়। ৩১ মার্চে তা শেষ হয়। তবে প্রবাসী বাংলাদেশীদের জন্য আবেদনের সময় ছিল ৯ এপ্রিল পর্যন্ত।

কোম্পানিটি ১০ টাকা অভিহিত মূল্যের সাথে ১৬ টাকা প্রিমিয়ামে অর্থাৎ ২৬ টাকা মূল্যে শেয়ার ইস্যুর অনুমোদন পায়। এই মূল্যে ২ কোটি ৪৫ লাখ ৬৬ হাজার ২শ’ শেয়ার ইস্যুর মাধ্যমে কোম্পানিটি পুঁজিবাজার থেকে ৬৩ কোটি ৮৭ লাখ ২১ হাজার ২শ’ টাকা সংগ্রহ করবে।

২০১৩ সালের ৩১ ডিসেম্বর সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় হয়েছে (ইপিএস) ২.৬৪ টাকা। আর শেয়ারপ্রতি সম্পদের (এনএভি) পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৩৪.৪১ টাকা।

(দ্য রিপোর্ট/আরএ/এমকে/শাহ/এপ্রিল ২৩, ২০১৫)

 

How-to Set Up A Study Matter

Preface This really is an excerpt from your Book, Abortion: How (and Just Why) Abortion Resides within the Lowest Form of Individual Thought and Worth” (pages 41-45). This comes somewhat delayed in the debate, consequently some phrases here relate back write a term paper to preceding points inside the E-Book. A few reviews will be inserted by me in [ brackets ] to explain a level that is previously made. Continue reading

অলিম্পিক এক্সেসরিজের আইপিও আবেদন শুরু

প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে আবেদন ও চাঁদা জমা নেওয়া শুরু হয়েছে অলিম্পিক এক্সেসরিজ লিমিটেডের। ১৯ এপ্রিল, রোববার থেকে শুরু হয়েছে চাঁদা গ্রহণের এ প্রক্রিয়া। চলবে ২৩ এপ্রিল পর্যন্ত। আর প্রবাসী বিনিয়োগকারীদের জন্য এই সুযোগ থাকবে ২ মে পর্যন্ত। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

কোম্পানিটি পুঁজিবাজারে ২ কোটি শেয়ার ছেড়ে ২০ কোটি টাকা সংগ্রহ করবে। কোম্পানিটিকে ১০ টাকা অভিহিত মূল্যে শেয়ার ইস্যুর অনুমোদন দিয়েছে বিএসইসি।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৫৩৯তম সভায় এ কোম্পানির আইপিও অনুমোদন দেওয়া হয়।

২০১৪ সালের ৩০ জুন শেষ হওয়া অর্থবছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী অলিম্পিক এক্সেসরিজের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ৪৩ পয়সা। নেট এসেট ভ্যালু (এনএভি) হয়েছে ১৬ টাকা ৩৪ পয়সা ।

কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে পিএলএফএস ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড ও সিএপিএম অ্যাডভাইজারি লিমিটেড।

(দ্য রিপোর্ট/এমকে/এপ্রিল ১৯,২০১৫)

 

ইউনাইটেড পাওয়ারের লেনদেন শুরু ৫ এপ্রিল

আগামী ৫ এপ্রিল, রবিবার থেকে শেয়ারবাজারে লেনদেন শুরু হচ্ছে ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন এ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির। ‘এন’ ক্যাটাগরি হিসাবে লেনদেন শুরু হওয়া কোম্পানিটির ট্রেডিং কোড হচ্ছে UPGDCL. ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

কোম্পানি ৩ কোটি ৩০ লাখ সাধারণ শেয়ার ছেড়ে শেয়ারবাজার থেকে ২৩৭ কোটি ৬০ লাখ টাকা সংগ্রহ করেছে। ১০ টাকা অভিহিত মূল্যের সঙ্গে ৬২ টাকা প্রিমিয়ামসহ প্রতিটি শেয়ারের বরাদ্দ মূল্য ছিল ৭২ টাকা। প্রতিটি লটে শেয়ারের পরিমাণ হচ্ছে ১০০টি।

কোম্পানি ১৮ থেকে ২২ জানুয়ারি পর্যন্ত সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে আইপিও’র মাধ্যমে আবেদন গ্রহণ করে। তবে প্রবাসী বিনিয়োগকারীদের জন্য এ সুযোগ ছিল ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত।

আইপিওতে চাহিদার ৫.৮৭ গুণ আবেদন জমা পড়েছে। কোম্পানির ১৪২ কোটি ৫৬ লাখ টাকার চাহিদার বিপরীতে ৮৩৭ কোটি ২ লাখ ৩৭ হাজার ৬০০ টাকার আবেদন জমা পড়েছে। এরমধ্যে সাধারণ বিনিয়োগকারীরা আবেদন করেছে ৬০৯ কোটি ১ লাখ ২০ হাজার টাকা, ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীরা ৭৫ কোটি ৮৯ লাখ ৮০ হাজার ৮০০ টাকা, প্রবাসী বিনিয়োগকারীরা ৬১ কোটি ২৩ লাখ ৯৬ হাজার টাকা এবং মিউচ্যুয়াল ফান্ড খাতে থেকে ৯০ কোটি ৮৭ লাখ ৪০ হাজার ৮০০ টাকার আবেদন জমা পড়েছে।

গত ১৯ ফেব্রুয়ারি কোম্পানির শেয়ার বরাদ্দে আইপিও লটারির ড্র অনুষ্ঠিত হয়।

৩১ ডিসেম্বর ২০১৩ সমাপ্ত অর্থবছরের নিরীক্ষিত হিসাব অনুযায়ী কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৫.৯৮ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভি) হয়েছে ২৩.৬৪ টাকা।

কোম্পানির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে লঙ্কাবাংলা ইনভেস্টমেন্ট এবং রেজিস্ট্রার ইস্যু হল আইসিবি ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড।

(দ্য রিপোর্ট/এমকে/এনআই/এপ্রিল ২,২০১৫)