Monthly Archives: January 2015

শাশা ডেনিমসের রিফান্ড ও এলোটমেন্ট প্রেরণ

প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) লটারিতে শেয়ার বরাদ্দ পাওয়াদের এলোটমেন্ট লেটার এবং শেয়ার বরাদ্দ না পাওয়াদের রিফান্ড ওয়ারেন্টস পাঠিয়েছে শাশা ডেনিমস লিমিটেড। সিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, আইপিও লটারিতে যেসব আবেদনকারী লটারিতে শেয়ার বরাদ্দ পায়নি তাদের টাকা পাঠানো হয়েছে আর শেয়ার বরাদ্দদের বরাদ্দপত্র পাঠিয়েছে বলে কোম্পানিটি জানিয়েছে।

কোম্পানিটি জানিয়েছে ৫ লাখ ৪৮ হাজার ৪৬৮টি আবেদনের রিফান্ড ওয়ারেন্ট এবং বরাদ্দপত্র অনলাইনের মাধ্যমে, ৬ লাখ ৩৮ হাজার ৩৫৩টি রিফান্ড ওয়ারেন্ট ও বরাদ্দপত্র হাতে হাতে এবং ৩০ হাজার ৮৯টি রিফান্ড ওয়ারেন্ট ও বরাদ্দপত্র কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে পাঠিয়েছে।

গত ২৫ জানুয়ারি বাংলা কুরিয়ার সার্ভিস, ভিশন এক্সপ্রেস লিমিটেড, আর.এম. কুরিয়ার সার্ভিস, টপ এক্সপ্রেস, কন্টিনেন্ট এক্সপ্রেস, একুশে এক্সপ্রেস, সময় এক্সপ্রেস এবং ফেইথ কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে পাঠানো হয়েছে।

এর আগে গত ১৮ জানুয়ারি কোম্পানিটির আইপিও লটারির ড্র অনুষ্ঠিত হয়। এরও আগে অর্থাৎ ১৪ ডিসেম্বর থেকে ১৮ ডিসেম্বর কোম্পানির আইপিওতে আবেদন গ্রহণ করা হয়। তবে প্রবাসি বিনিয়োগকারীদের জন্য এ সুযোগ ছিলো ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত।

কোম্পানিটির আইপিওতে বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৯৬৩ কোটি ২৭ লাখ ৭ হাজার টাকার আবেদন জমা পড়েছে। যা আবেদনকৃত অর্থের ৫.৫০ গুণ। এর মধ্যে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৭২০ কোটি ২১ লাখ ৪ হাজার, ক্ষতিগ্রস্তদের কাছ থেকে ৮০ কোটি ৭৯ লাখ ৫ হাজার টাকার, মিউচ্যুয়াল ফান্ড খাতের বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ১১১ কোটি ৩৬ লাখ ৫১ হাজার টাকার এবং প্রবাসি বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৫০ কোটি ৯০ লাখ ৪৭ হাজার টাকার আবেদন জমা পড়েছে।

কোম্পানিটি শেয়ারবাজারে ৫ কোটি শেয়ার ছেড়ে ১৭৫ কোটি টাকা উত্তোলন করে। ১০ টাকা অভিহিত মূল্যের সঙ্গে ২৫ টাকা প্রিমিয়ামসহ প্রতিটি শেয়ারের মূল্য নির্ধারণ করা হয় ৩৫ টাকা। কোম্পানিটি ব্যবসা সম্প্রসারণ এবং ব্যাংক ঋণ পরিশোধের শেয়ারবাজার থেকে অর্থ উত্তোলন করে।

বিএসইসির ৫২৯তম কমিশন সভায় কোম্পানিটির আইপিও অনুমোদন দেয়া হয়।

৩১ ডিসেম্বর ২০১৩ সমাপ্ত অর্থবছরের আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩.৭৩ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভি) হয়েছে ৫২.৯৫ টাকা।

কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে এএফসি ক্যাপিটাল লিমিটেড এবং ইমপেরিয়াল ক্যাপিটাল লিমিটেড।

শেয়ারনিউজ২৪/এস/১৪.৩০ঘ.

 

জাহিন স্পিনিংয়ে ৭৪ গুণ আবেদন পড়েছে

প্রাথমিক গণ প্রস্তাবে (আইপিও) জাহিন স্পিনিং লিমিটেডে আবেদনকারীদের কাছ থেকে ১২ কোটি টাকার বিপরীতে ৮৮৭ কোটি টাকার আবেদন জমা পড়েছে। যা উত্তোলনকৃত অর্থের চেয়ে প্রায় ৭৪ গুণ। সিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, কোম্পানির আইপিও আবেদনে বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৮৮৭ কোটি ১৬ লাখ ৭০ হাজার টাকার আবেদন জমা পড়েছে। যা উত্তোলনকৃত অর্থের চেয়ে ৭৩.৯৩ গুণ। এর মধ্যে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৫৫৬ কোটি ৯৫ লাখ ২০ হাজার টাকার, ক্ষতিগ্রস্তদের কাছ থেকে ৬৩ কোটি ৭১ লাখ ১৫ হাজার টাকার, মিউচ্যুয়াল ফান্ড খাতে ২৪৫ কোটি ৭৫ লাখ ৬৫ হাজার টাকার এবং প্রবাসি বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ২০ কোটি ৭৪ লাখ ৭০ হাজার টাকার আবেদন জমা পড়েছে।

জানা গেছে, কোম্পানিটির আইপিওতে আবেদন গ্রহণ ২৮ ডিসেম্বর থেকে ৪ জানুয়ারি পর্যন্ত গ্রহণ করা হয়। তবে প্রবাসি বিনিয়োগকারীদের জন্য এ সুযোগ ছিলো ১৩ জানুয়ারি পর্যন্ত।

কোম্পানিটি শেয়ারবাজার থেকে ১২ কোটি টাকা উত্তোলনের জন্য ১ কোটি ২০ লাখ শেয়ার ছাড়ে। এ জন্য প্রতিটি শেয়ারের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১০ টাকা। ৫০০ টি শেয়ারে মার্কেট লট।

৩০ জুন ২০১৪ সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.০১ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভি) হয়েছে ১২.৫৯ টাকা।

আইপিওতে কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে এমটিবি ক্যাপিটাল লিমিটেড।

এর আগে বিএসইসির ৫৩০ তম কমিশন সভায় কোম্পানিটির আইপিও অনুমোদন করা হয়।

শেয়ারনিউজ২৪/এস/১৩.০৫ঘ.

জাহিন স্পিনিংয়ের লটারির ড্র ২ ফেব্রুয়ারি

প্রাথমিক গণ প্রস্তাবে (আইপিও) আবেদনকারীদের মধ্যে শেয়ার বরাদ্দ দেয়ার জন্য জাহিন স্পিনিং লিমিটেডের লটারির ড্র আগামী ২ ফেব্রুয়ারি, সোমবার অনুষ্ঠিত হবে। কোম্পানি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, ওই দিন সকাল সাড়ে ১০টায় রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ারিং ইন্সটিটিউটে লটারির ড্র অনুষ্ঠিত হবে।

কোম্পানিটির আইপিওতে মোট ৫৬৩ কোটি ৭২ লাখ টাকার আবেদন জমা পড়েছে। যা উত্তোলনকৃত অর্থের চেয়ে ৪৬.৯৩ গুণ। এর মধ্যে সাধারণ, ক্ষতিগ্রস্ত ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড খাতে বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৫৬২ কোটি ৭২ লাখ টাকার এবং প্রবাসি বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৫০ লাখ টাকার আবেদন জমা পড়েছে।

এর আগে কোম্পানিটির আইপিওতে আবেদন গ্রহণ ২৮ ডিসেম্বর শুরু হয়ে শেষ হয় ৫ জানুয়ারি। তবে প্রবাসি বিনিয়োগকারীদের জন্য এ সুযোগ ছিলো ১৩ জানুয়ারি পর্যন্ত।

কোম্পানিটি শেয়ারবাজারে ১ কোটি ২০ লাখ শেয়ার ছেড়ে ১২ কোটি টাকা উত্তোলন করে। এ জন্য প্রতিটি শেয়ারের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১০ টাকা।

৩০ জুন ২০১৪ সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.০১ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভি) হয়েছে ১২.৫৯ টাকা।

আইপিওতে কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে এমটিবি ক্যাপিটাল লিমিটেড।

এর আগে বিএসইসির ৫৩০ তম কমিশন সভায় কোম্পানিটির আইপিও অনুমোদন করা হয়।

শেয়ারনিউজ২৪/এস/১০.২০ঘ.

সন্ধানী লাইফ গ্রোথ ফান্ডে ২১ কোটি টাকার আবেদন

এশিয়ান টাইগার সন্ধানী লাইফ গ্রোথ ফান্ডের প্রাথমিক গণ প্রস্তাবে (আইপিও) ১০০ কোটি টাকার বিপরীতে আবেদনকারীদের কাছ থেকে প্রায় ২১ কোটি টাকার আবেদন জমা পড়েছে। সিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত আবেদনকারীদের কাছ থেকে ১০০ কোটি টাকার বিপরীতে ২০ কোটি ৭২ লাখ ৭০ হাজার টাকার আবেদন জমা পড়েছে। এর মধ্যে সাধারণ, ক্ষতিগ্রস্ত ও মিউচ্যুয়ার ফান্ডে ২০ কোটি ৭২ লাখ ৪০ হাজার টাকার এবং প্রবাসি বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ২ লাখ ৩০ হাজার টাকার আবেদন জমা পড়েছে।

কোম্পানিতে আবেদন গ্রহণ ১১ জানুয়ারি শুরু হয়ে শেষ হয় ১৫ জানুয়ারি। তবে প্রবাসি বিনিয়োগকারীদের জন্য এ সুযোগ ছিলো ২৪ জানুয়ারি পর্যন্ত। কোম্পানিটির প্রতি ইউনিট নীট সম্পদ মূল্য ১৪.১২ টাকা।

কোম্পানিটি শেয়ারবাজারে ১০ কোটি ইউনিট ছেড়ে শেয়ারবাজার থেকে ১০০ কোটি টাকা উত্তোলন করবে। এ জন্য প্রতিটি ইউনিটের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১০ টাকা। কোম্পানির ৫০০টি ইউনিটে মার্কেট লট নির্ধারণ করা হয়েছে।

এর আগে প্রসপেক্টাস সময় মতো দাখিল করতে ব্যর্থ হওয়ার বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৪৯৯ তম কমিশন সভায় কোম্পানিটির আইপিও আবেদন বাতিলের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

এরও আগে বিএসইসির ৩৬২ তম কমিশন সভায় কোম্পানিটির আইপিও অনুমোদন করা হয়।

শেয়ারনিউজ২৪/এস/১৩.৫০ঘ.

 

ফেব্রুয়ারিতে বাংলাদেশ স্টিলে আইপিও আবেদন গ্রহণ

প্রাথমিক গণ প্রস্তাবের (আইপিও) অনুমোদন পাওয়া বাংলাদেশ স্টিল রি-রোলিং মিলস লিমিটেডে আবেদন গ্রহণ শুরু হবে আগামী মাসের প্রথম দিন অর্থাৎ ১ ফেব্রুয়ারি। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, কোম্পানিটির আইপিওতে আবেদন গ্রহণ ১ ফেব্রুয়ারি শুরু হয়ে শেষ হবে ৫ ফেব্রুয়ারি। তবে প্রবাসি বিনিয়োগকারীদের জন্য এ সুযোগ থাকবে ১৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।

কোম্পানিটি শেয়ারবাজারে ১ কোটি ৭৫ লাখ শেয়ার ছেড়ে আইপিওর মাধ্যমে ৬১ কোটি ২৫ লাখ টাকা উত্তোলন করবে। এ জন্য ১০ টাকা ফেসভ্যালুর সঙ্গে ২৫ টাকা প্রিমিয়ামসহ প্রতিটি শেয়ারের নির্দেশক মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৩৫ টাকা।

আইপিওর মাধ্যমে অর্থ উত্তোলন করে কোম্পানিটি ঋণ পরিশোধ ও আইপিও খরচ খাতে ব্যয় করবে।

৩১ ডিসেম্বর ২০১৩ সমাপ্ত অর্থবছরের আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৫.০৬ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভি) হয়েছে ৫২.০৯ টাকা।

আইপিও ব্যবস্থাপনায় কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপকের দায়িত্বে রয়েছে অ্যালায়েন্স ফাইন্যান্স সার্ভিসেস লিমিটেড।

এর আগে বিএসইসির ৫৩৩ তম কমিশন সভায় কোম্পানিটির আইপিও’র অনুমোদন দেয়া হয়।

শেয়ারনিউজ২৪/এস/১১.৩৫ঘ.

আগামীকাল সিঅ্যান্ডএ টেক্সটাইলের লেনদেন শুরু

প্রাথমিক গণ প্রস্তাব (আইপিও) প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়া সি অ্যান্ড এ টেক্সটাইল লিমিটেডের লেনদেন আগামীকাল ২১ জানুয়ারি, বুধবার থেকে দেশের উভয় শেয়ারবাজারে শুরু হবে। কোম্পানির চেয়ারম্যান গাজী গোলাম জাকারিয়া শেয়ারনিউজ২৪.কমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

কোম্পানিটির লেনদেন দেশের উভয় শেয়ারবাজারে ‘এন’ ক্যাটাগরিভুক্ত হয়ে লেনদেন শুরু হবে। উভয় শেয়ারবাজার ট্রেডিং কোড হচ্ছে: ‘CNATEX’ এবং ডিএসই কোম্পানি কোড হচ্ছে: ১৭৪৬৫ আর সিএসইতে কোম্পানি কোড হচ্ছে: ১২০৫৩।

এর আগে কোম্পানিটির আইপিওতে আবেদনকারীদের মধ্যে শেয়ার বরাদ্দ দেয়ার জন্য লটারির ড্র গত ১১ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হয়। আর কোম্পানির আইপিওতে আবেদন গ্রহণ করা হয় ৯ নভেম্বর থেকে ১৩ নভেম্বর পর্যন্ত। আর প্রবাসি বিনিয়োগকারীদের জন্য এ সুযোগ ছিলো ২২ নভেম্বর পর্যন্ত।

কোম্পানিটির আইপিওতে ৯১০ কোটি ১৫ লাখ ৭০ হাজার টাকার আবেদন জমা পড়ে। যা উত্তোলনকৃত অর্থে ২০.২২ গুণ। এর মধ্যে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৬১২ কোটি ৫০ লাখ ৩০ হাজার টাকার, ক্ষতিগ্রস্তদের কাছ থেকে ৬৪ কোটি ৯১ লাখ ৫০ হাজার টাকার, মিউচ্যুয়াল ফান্ড খাতে ১৮৮ কোটি ৮৮ লাখ ২০ হাজার টাকার এবং প্রবাসি বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৪৩ কোটি ৮৫ লাখ ৭০ হাজার টাকার আবেদন জমা পড়ে।

কোম্পানিটি শেয়ারবাজার থেকে ৪৫ কোটি টাকা উত্তোলনের জন্য ৪ কোটি ৫০ লাখ শেয়ার ছাড়ে। এ জন্য প্রতিটি শেয়ারের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১০ টাকা। ৫০০টি শেয়ারে মার্কেট লট।

ব্যাংক ঋণ পরিশোধ, ভবন নির্মাণ এবং আইপিও খরচ খাতের ব্যয় করতে শেয়ারবাজার থেকে অর্থ উত্তোলন করে।

৩১ ডিসেম্বর ২০১৩ অর্ধবার্ষিক আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৯৭ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৮.৩৮ টাকা।

আইপিওতে কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে এএফসি ক্যাপিটাল লিমিটেড এবং ইম্পেরিয়াল ক্যাপিটাল লিমিটেড।

শেয়ারনিউজ২৪/আনিস/এস/১৪.১০ঘ.

 

সিঅ্যান্ডএ টেক্সটাইলের লেনদেন শুরু বুধবার

প্রাথমিক গণ প্রস্তাব (আইপিও) প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়া সি অ্যান্ড এ টেক্সটাইল লিমিটেডের লেনদেন আগামী ২১ জানুয়ারি, বুধবার থেকে দেশের উভয় শেয়ারবাজারে শুরু হবে। কোম্পানির চেয়ারম্যান গাজী গোলাম জাকারিয়া শেয়ারনিউজ২৪.কমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

কোম্পানিটির লেনদেন দেশের উভয় শেয়ারবাজারে ‘এন’ ক্যাটাগরিভুক্ত হয়ে লেনদেন শুরু হবে। প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ট্রেডিং কোড হচ্ছে: ‘CNATEX’ এবং ডিএসই কোম্পানি কোড হচ্ছে: ১৭৪৬৫।

এর আগে কোম্পানিটির আইপিওতে আবেদনকারীদের মধ্যে শেয়ার বরাদ্দ দেয়ার জন্য লটারির ড্র গত ১১ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হয়। আর কোম্পানির আইপিওতে আবেদন গ্রহণ করা হয় ৯ নভেম্বর থেকে ১৩ নভেম্বর পর্যন্ত। আর প্রবাসি বিনিয়োগকারীদের জন্য এ সুযোগ ছিলো ২২ নভেম্বর পর্যন্ত।

কোম্পানিটির আইপিওতে ৯১০ কোটি ১৫ লাখ ৭০ হাজার টাকার আবেদন জমা পড়ে। যা উত্তোলনকৃত অর্থে ২০.২২ গুণ। এর মধ্যে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৬১২ কোটি ৫০ লাখ ৩০ হাজার টাকার, ক্ষতিগ্রস্তদের কাছ থেকে ৬৪ কোটি ৯১ লাখ ৫০ হাজার টাকার, মিউচ্যুয়াল ফান্ড খাতে ১৮৮ কোটি ৮৮ লাখ ২০ হাজার টাকার এবং প্রবাসি বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৪৩ কোটি ৮৫ লাখ ৭০ হাজার টাকার আবেদন জমা পড়ে।

কোম্পানিটি শেয়ারবাজার থেকে ৪৫ কোটি টাকা উত্তোলনের জন্য ৪ কোটি ৫০ লাখ শেয়ার ছাড়ে। এ জন্য প্রতিটি শেয়ারের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১০ টাকা। ৫০০টি শেয়ারে মার্কেট লট।

ব্যাংক ঋণ পরিশোধ, ভবন নির্মাণ এবং আইপিও খরচ খাতের ব্যয় করতে শেয়ারবাজার থেকে অর্থ উত্তোলন করে।

৩১ ডিসেম্বর ২০১৩ অর্ধবার্ষিক আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৯৭ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৮.৩৮ টাকা।

আইপিওতে কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে এএফসি ক্যাপিটাল লিমিটেড এবং ইম্পেরিয়াল ক্যাপিটাল লিমিটেড।

শেয়ারনিউজ২৪/আনিস/এস/১৫.৪৫ঘ.

 

আজ শাশা ডেনিমসের লটারির ড্র

প্রাথমিক গণ প্রস্তাবে (আইপিও) আবেদনকারীদের মধ্যে শেয়ার বরাদ্দ দেয়ার জন্য শাশা ডেনিমস লিমিটেডের লটারির ড্র আজ ১৮ জানুয়ারি, রোববার অনুষ্ঠিত হবে। সিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, কোম্পানিটির লটারির ড্র রাজধানীর রমনাতে অবস্থিত ইঞ্জিনিয়ার্স ইনষ্টিটিউশনের সেমিনার হলে সকাল সাড়ে ১০টায় অনুষ্ঠিত হবে।

জানা গেছে, কোম্পানিটির আইপিওতে বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৯৬৩ কোটি ২৭ লাখ ৭ হাজার টাকার আবেদন জমা পড়েছে। যা আবেদনকৃত অর্থের ৫.৫০ গুণ। এর মধ্যে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৭২০ কোটি ২১ লাখ ৪ হাজার, ক্ষতিগ্রস্তদের কাছ থেকে ৮০ কোটি ৭৯ লাখ ৫ হাজার টাকার, মিউচ্যুয়াল ফান্ড খাতের বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ১১১ কোটি ৩৬ লাখ ৫১ হাজার টাকার এবং প্রবাসি বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৫০ কোটি ৯০ লাখ ৪৭ হাজার টাকার আবেদন জমা পড়েছে।

কোম্পানির আইপিওতে আবেদন গ্রহণ ১৪ ডিসেম্বর শুরু হয়ে শেষ হয় ১৮ ডিসেম্বর। তবে প্রবাসি বিনিয়োগকারীদের জন্য এ সুযোগ ছিলো ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত।

কোম্পানিটি শেয়ারবাজারে ১৭৫ কোটি টাকা উত্তোলনের জন্য ৫ কোটি শেয়ার ছেড়েছে। এ জন্য ১০ টাকা অভিহিত মূল্যের সঙ্গে ২৫ টাকা প্রিমিয়ামসহ প্রতিটি শেয়ারের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৩৫ টাকা। শেয়ারবাজার থেকে অর্থ উত্তোলন করে কোম্পানিটি ব্যবসা সম্প্রসারণ, ব্যাংক ঋণ পরিশোধ এবং আইপিও খাতে ব্যয় করবে।

বিএসইসির ৫২৯তম কমিশন সভায় কোম্পানিটির আইপিও অনুমোদন দেয়া হয়।

৩১ ডিসেম্বর ২০১৩ সমাপ্ত অর্থবছরের আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩.৭৩ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভি) হয়েছে ৫২.৯৫ টাকা।

কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে এএফসি ক্যাপিটাল লিমিটেড এবং ইমপেরিয়াল ক্যাপিটাল লিমিটেড।

শেয়ারনিউজ২৪/এস/০০.৫০ঘ.