Monthly Archives: September 2014

চলছে ওয়েস্টার্ন মেরিনের আইপিও লটারির ড্র

আবেদনকারীদের শেয়ার বরাদ্দ দিতে ওয়েস্টার্ন মেরিন শিপইয়ার্ডের প্রাথমিক গণপ্রস্তাবে (আইপিও) লটারির ড্র চলছে।

আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা ৩০মিনিটে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউটে শুরু হয় এ লটারির ড্র।

লটারির ড্র অনুষ্ঠানে কোম্পানির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ছাড়াও ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই), চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই) ও ইস্যু ম্যানেজার কোম্পানির কর্তকর্তারা উপস্থিত আছেন।

লটারির ফলাফল পাওয়া মাত্রই শেয়ারনিউজ২৪.কমের পাঠকদের জন্য তা প্রকাশ করবো।

জানা গেছে, ওয়েস্টার্ন মেরিনের আইপিওতে মোট আবেদন জমা পড়েছে ৪২৩ কোটি ৪১ লাখ টাকার। আর কোম্পানিটি শেয়ারবাজারে ৪ কোটি ৫০ লাখ শেয়ার ছেড়ে ১৫৭ কোটি ৫০ লাখ টাকা সংগ্রহ করবে। অর্থাৎ আইপিওতে কোম্পানির চাহিদার ২.৬৯ গুণ আবেদন জমা পড়েছে।

এর মধ্যে সাধারণ বিনিয়োগকারীরা জমা দিয়েছেন ২৮৮ কোটি ১০ লাখ টাকার আবেদন, ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীরা ৩৫ কোটি ৮৮ লাখ টাকা, প্রবাসী বিনিয়োগকারীরা ২৪ কোটি ৯৩ লাখ টাকা এবং মিউচুয়াল ফান্ড কোটায় জমা পড়েছে ৭৪ কোটি ৪৮ লাখ টাকার আবেদন।

আইপিওতে স্থানীয় বিনিয়োগকারীরা গত ১০ থেকে ১৪ আগস্ট পর্যন্ত আবেদন করার সুযোগ পান। আর প্রবাসী বিনিয়োগকারীদের জন্য আবেদনের শেষ সময় ছিল ২৪ আগস্ট।

আইপিওতে ফেসভ্যালু ১০ টাকার সঙ্গে ২৫ টাকা প্রিমিয়াম নিয়েছে ওয়েস্টার্ন মেরিন। আর এ শেয়ারের মার্কেট লট ধরা হয়েছে ১০০টিতে।

সুহৃদ ইন্ডাষ্ট্রিজের আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ

তৃতীয় প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে প্রাথমিক গণ প্রস্তাব (আইপিও) সম্পন্ন করা সুহৃদ ইন্ডাষ্ট্রিজ লিমিটেড। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

চলতি বছরের ৩১ মার্চ শেষ হওয়া তৃতীয় প্রান্তিকের (জানু-মার্চ’১৪) আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী সুহৃদ ইন্ডাষ্ট্রিজের কর পরবর্তী মুনাফা হয়েছে ৭৩ লাখ টাকা এবং শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.২৪ টাকা। যা আগের বছরের একই সময়ে ছিল ৭১ লাখ টাকা এবং ইপিএস ছিল ০.২৩ টাকা।

এখানে বেসিক ইপিএস হিসাব করা হয়েছে প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) আগের ৩ কোটি ১৩ লাখ ৫০ হাজার শেয়ার গণনায় ধরে। তবে আইপিও পরবর্তী ৪ কোটি ৫৩ লাখ ৫০ হাজার শেয়ারের হিসেবে তৃতীয় প্রান্তিকে এ কোম্পানির বেসিক ইপিএস হবে ০.১৬ টাকা।

গত নয় মাসে (জুলাই’১৩-মার্চ’১৪) এ কোম্পানির কর পরবর্তী মুনাফা হয়েছে ২ কোটি ৫৪ লাখ টাকা ও ইপিএস হয়েছে ০.৮১ টাকা। যা আগের বছরের একই সময়ে ছিল যথাক্রমে ২ কোটি ৪৫ লাখ টাকা ও ০.৭৮ টাকা।

একই হিসেবে বিগত নয় মাসে এ কোম্পানির বেসিক ইপিএস হবে ০.৫৬ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভি) হবে ১৩.৪০ টাকা।

উল্লেখ, সোমবার দেশের উভয় শেয়ারবাজারে শেয়ার লেনদেন শুরু করবে সুহৃদ ইন্ডাষ্ট্রিজ।

 

সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজের লেনদের শুরু সোমবার

সোমবার শেয়ারবাজারে লেনদেন শুরু করতে যাচ্ছে সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড। কোম্পানি পরিচালক মো. ইঞ্জিনিয়ার মাহমুদুল হাসান শেয়ারনিউজ২৪.কমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

মাহমুদুল হাসান জানান, গতকাল সুহৃদের শেয়ার বিনিয়োগকারীদের বিও হিসাবে (বেনিফিশিয়ারী ওনার্স এ্যাকাউন্ট) জমা হয়েছে। কোম্পানির আবেদনের প্রেক্ষিতে ঢাকা স্টক একচেঞ্জ (ডিএসই) ম্যানেজমেন্ট আগামী ৮ সেপ্টেম্বর লেনদেনের তারিখ নির্ধারণ করেছে।

এর আগে গত ১৪ আগস্ট ডিএসই ও ১৮ আগস্ট সিএসইতে তালিকাভুক্ত হয় কোম্পানিটি। আর বিনিয়োগকারীদের মধ্যে শেয়ার বরাদ্দ দিতে ১০ জুলাই আইপিও লটারির ড্র অনুষ্ঠান সম্পন্ন করে সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজ ।

সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজের প্রাথমিক গণপ্রস্তাবে (আইপিও) শেয়ারবাজার থেকে মোট ১৪ কোটি টাকা সংগ্রহ করেছে। এই কোম্পানির আইপিওর আবেদন গ্রহণ করা হয় ৮ জুন থেকে ১২ জুন পর্যন্ত। আর প্রবাসী বিনিয়োগকারীদের আবেদন নেওয়া হয় ২১ জুন পর্যন্ত।

আইপিওতে সুহৃদের কোনো প্রিমিয়াম ছিল না। অভিহিত মূল্যেই শেয়ার ইস্যু করেছে কোম্পানিটি। কোম্পানির প্রতি শেয়ারের ফেসভ্যালু ১০ টাকা। আর মার্কেট লট ৫০০ শেয়ারে। 

সর্বশেষ আর্থিক প্রতিবেদন হিসেব অনুযায়ী এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.১০ টাকা। আর প্রতি শেয়ারের সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ১৪.১১ টাকা। 

হামিদ ফেব্রিকসের আইপিও আবেদন ২৮ সেপ্টেম্বর থেকে

সম্প্রতি আইপিওর অনুমোদন পাওয়া হামিদ ফেব্রিকস লিমিটেডের আবেদন আগামী জমা নেওয়া শুরু হবে ২৮ সেপ্টেম্বর থেকে ২ অক্টোবর পর্যন্ত। তবে প্রবাসী বিনিয়োগকারীদের জন্য এই সুযোগ থাকছে ১১ অক্টোবর পর্যন্ত। কোম্পানি সূত্রে এই তথ্য জানা যায়। এর আগে গত ১২ আগস্ট বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৫২৪তম সভায় কোম্পানিটির প্রাথমিক গণ প্রস্তাবের (আইপিও) অনুমোদন দেওয়া হয়। আইপিওতে কোম্পানিটি ১০ টাকা অভিহিত মূল্যের সাথে ২৫ টাকা প্রিমিয়ামসহ ৩৫ টাকা মূল্যে ৩ কোটি শেয়ার ইস্যু করবে। ৩০ জুন ২০১৩ সমাপ্ত হিসাব বছরের নিরীক্ষিত হিসাবে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ৫ টাকা ৩ পয়সা। আর শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য বা এনএভি ছিল ৪১ টাকা ১৪ পয়সা। কোম্পানিটির ইস্যু ম্যানেজার হিসেবে রয়েছে আইসিবি ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড। উল্লেখ্য, এ কোম্পানির মাধ্যমেই শুরু হচ্ছে আইপিওর নতুন পদ্ধতি চালুর পাইলট প্রকল্প। তাই নির্ধারিত ব্যাংকের শাখার পাশাপাশি নির্দিষ্ট স্টক ব্রোকার (ট্রেকহোল্ডার) ও মার্চেন্ট ব্যাংকের মাধ্যমে আবেদন জমা দিতে পারবেন বিনিয়োগকারীরা।

তুং হাই নিটিংয়ের আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ

প্রথম প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে সোমবার লেনদেন শুরু করতে যাওয়া বস্ত্র খাতের কোম্পানি তুং হাই নিটিং অ্যান্ড ডাইং ইন্ডাষ্ট্রিজ। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

চলতি বছরের ৩১ মার্চ শেষ হওয়া প্রথম প্রান্তিকের (জানু-মার্চ’১৪) আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী তুং হাই নিটিংয়ের কর পরবর্তী মুনাফা হয়েছে ১ কোটি ২২ লাখ টাকা ও শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.২৭ টাকা। যা আগের বছরের একই সময়ে ছিল ১ কোটি ১৬ লাখ টাকা ও ০.২৬ টাকা।

উল্লেখ্য, এখানে বেসিক ইপিএস হিসেব করা হয়েছে প্রাথমিক গণপ্রস্তাব (আইপিও) পূর্ববর্তী ৪ কোটি ৫১ লাখ ৩০ হাজার শেয়ারের হিসেবে। আইপিও পরবর্তী ৮ কোটি ১ লাখ ৩০ হাজার শেয়ারের হিসেবে প্রথম প্রান্তিকে ইপিএস হবে ০.১৫ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভি) হবে ১৩.০৩ টাকা।