Monthly Archives: September 2014

সাইফ পাওয়ারটেকের লেনদেন শুরু সোমবার

প্রাথমিক গণ প্রস্তাব (আইপিও) প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়া সাইফ পাওয়ারটেক লিমিটেডের শেয়ার লেনদেন শুরু হবে আগামী ২৯ সেপ্টেম্বর, সোমবার। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা যায়, ডিএসইতে কোম্পানিটি ‘এন’ ক্যাটাগরিতে লেনদেন শুরু হবে। কোম্পানিটির ডিএসই ট্রেডিং কোড”SAIFPOWER” এবং ডিএসই কোম্পানি কোড ২০৬২৩।

এর আগে গত ৭ আগস্ট কোম্পানির আইপিও লটারির ড্র অনুষ্ঠিত হয়। আর কোম্পানিটির আইপিওতে আবেদন গ্রহন করা হয় ৬ থেকে ১০ জুলাই পর্যন্ত। তবে প্রবাসী বিনিয়োগকারীদের জন্য এ সুযোগ ছিলো ১৯ জুলাই পর্যন্ত।

কোম্পানিটির আইপিওতে ৩৪০ কোটি ৬২ লাখ টাকার আবেদন জমা পড়ে। যা উত্তোলনকৃত টাকা চেয়ে ৯.৪৬ গুণ। কোম্পানিটি শেয়ারবাজারে ১ কোটি ২০ লাখ শেয়ার ছেড়ে ৩৬ কোটি টাকা উত্তোলন করে। ১০ টাকা অভিহিত মূল্যের সঙ্গে ২০ টাকা প্রিমিয়ামসহ প্রতিটি শেয়ারের মূল্য নির্ধারণ করা হয় ৩০ টাকা।

বাংলাদেশ সিকিউরিটি অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৫১৫তম সভায় এই কোম্পানির আইপিও অনুমোদন দেওয়া হয়।

উত্তোলিত টাকা কোম্পানি কর্তৃপক্ষ নতুন ব্যাটারি প্রকল্প এবং আইপিওর কাজে ব্যয় করবেন বলে জানা গেছে।

৩০ জুন ২০১৩ সমাপ্ত বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী সমাপ্ত বছরের হিসাবসহ বিগত পাঁচ বছরের অনুযায়ী ওয়েটেড এভারেজ কনসোলিটেড শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২.০১ টাকা। আর নব মূল্যায়িত শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ২৪.২৯ টাকা।

 

খান ব্রাদার্সের আইপিও লটারির ড্র শুরু

বিনিয়োগকারীদের মধ্যে শেয়ার বরাদ্দ দেয়ার জন্য খান ব্রাদার্স পিপি ওভেন ব্যাগ ইন্ডাাষ্ট্রিজ লিমিটেডের আইপিও লটারির ড্র শুরু হয়েছে। কোম্পানিটির লটারির ড্র সকাল ১০টা ৩০ মিনিটে সেমিনার হল অব ইনষ্টিটিউশন অব ইঞ্জিনিয়ার্স (আইইবি), রমনা ঢাকাতে শুরু হয়।

এ কোম্পানিটির আইপিওতে মোট ৮৭২ কোটি ৫০ লাখ ৫৫ হাজার টাকার বা ৪৩.৬২ গুন আবেদন জমা পড়েছে। এর মধ্যে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৫৭০ কোটি ৯৫ লাখ ৫০ হাজার টাকার, ক্ষতিগ্রস্ত ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৬১ কোটি ৮৪ লাখ ৫৫ হাজার টাকার, মিউচ্যুয়াল ফান্ডে ১৯৮ কোটি ৯৯ লাখ টাকার এবং প্রবাসী বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৪০ কোটি ৭১ লাখ ৫০ হাজার টাকার আবেদন জমা পড়ে। কোম্পানিটি শেয়ারবাজার থেকে ২০ কোটি টাকা সংগ্রহের জন্য ২ কোটি শেয়ার ছেড়েছে। কোম্পানির প্রতিটি শেয়ারের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১০ টাকা এবং মার্কেট লট ৫০০টি শেয়ারে।

স্থানীয় বিনিয়োগকারীরা ২৪ থেকে ২৮ আগস্ট পর্যন্ত এবং প্রবাসীরা ৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এ কোম্পানির আইপিওতে আবেদন করার সুযোগ পান।

পুঁজিবাজার থেকে সংগৃহীত অর্থে কোম্পানিটি মেশিনারিজ কেনা, বিল্ডিং নির্মাণ, ব্যাংক ঋণ পরিশোধ ও চলতি মূলধন বাড়াবে।

এর আগে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৫২১তম সভায় কোম্পানিটির আইপিও অনুমোদন দেওয়া হয়।

ইস্যু ম্যানেজার হিসেবে কাজ করছে এএফসি ক্যাপিটাল লিমিটেড এবং সিএমএসএল ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড।

খান ব্রাদার্সের আইপিও লটারির ড্র বৃহস্পতিবার

প্রাথমিক গণ প্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে অর্থ উত্তোলনের পর বিনিয়োগকারীদের মধ্যে শেয়ার বরাদ্দ দেয়ার জন্য খান ব্রাদার্স পিপি ওভেন ব্যাগ ইন্ডাাষ্ট্রিজ লিমিটেডের লটারির ড্র আগামীকাল ২৫ সেপ্টেম্বর, বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত হবে। সিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, কোম্পানিটির লটারির ড্র এ দিন সকাল ১০টা ৩০ মিনিটে সেমিনার হল অব ইনষ্টিটিউশন অব ইঞ্জিনিয়ার্স (আইইবি), রমনা ঢাকাতে অনুষ্ঠিত হবে।

এ কোম্পানিটির আইপিওতে মোট ৮৭২ কোটি ৫০ লাখ ৫৫ হাজার টাকার বা ৪৩.৬২ গুন আবেদন জমা পড়েছে। এর মধ্যে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৫৭০ কোটি ৯৫ লাখ ৫০ হাজার টাকার, ক্ষতিগ্রস্ত ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৬১ কোটি ৮৪ লাখ ৫৫ হাজার টাকার, মিউচ্যুয়াল ফান্ডে ১৯৮ কোটি ৯৯ লাখ টাকার এবং প্রবাসী বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৪০ কোটি ৭১ লাখ ৫০ হাজার টাকার আবেদন জমা পড়ে। কোম্পানিটি শেয়ারবাজার থেকে ২০ কোটি টাকা সংগ্রহের জন্য ২ কোটি শেয়ার ছেড়েছে। কোম্পানির প্রতিটি শেয়ারের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১০ টাকা এবং মার্কেট লট ৫০০টি শেয়ারে।

স্থানীয় বিনিয়োগকারীরা ২৪ থেকে ২৮ আগস্ট পর্যন্ত এবং প্রবাসীরা ৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এ কোম্পানির আইপিওতে আবেদন করার সুযোগ পান।

পুঁজিবাজার থেকে সংগৃহীত অর্থে কোম্পানিটি মেশিনারিজ কেনা, বিল্ডিং নির্মাণ, ব্যাংক ঋণ পরিশোধ ও চলতি মূলধন বাড়াবে।

এর আগে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৫২১তম সভায় কোম্পানিটির আইপিও অনুমোদন দেওয়া হয়।

ইস্যু ম্যানেজার হিসেবে কাজ করছে এএফসি ক্যাপিটাল লিমিটেড এবং সিএমএসএল ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড।

সি অ্যান্ড এ টেক্সটাইলের আইপিও অনুমোদন

প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) অনুমোদন পেল সি অ্যান্ড এ টেক্সটাইল লিমিটেড। বিএসইসি সূত্রে এ তথ্য জানা যায়।

মঙ্গলবার বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৫২৮তম সভায় এ কোম্পানির আইপিও অনুমোদন দেওয়া হয়।

কোম্পানিটি শেয়ারবাজারে ৪ কোটি ৫০ লাখ শেয়ার ছেড়ে ৪৫ কোটি টাকা সংগ্রহ করবে। ১০ টাকা অভিহিত মূল্যে কোম্পানিটি শেয়ার ইস্যু করবে বলে জানা গেছে।

চলতি বছরের ৩০ জুন শেষ হওয়া অর্থ বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী সিএ টেক্সটাইল শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৭৮ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ১৮.৩৮ টাকা ।

সি অ্যান্ড এ টেক্সটাইলে ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে এএফসি ক্যাপিটাল ও ইম্পেরিয়াল ক্যাপিটাল লিমিটেড।

হামিদ ফ্রেবিক্সের আইপিও আবেদন ২৮ সেপ্টেম্বর

প্রাথমিক গণপ্রস্তাবে অনুমোদন পাওয়া হামিদ ফ্রেবিক্সে লিমিটেডের আইপিও আবেদন শুরু হবে আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

এর আগে গত ১২ আগস্ট বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৫২৪তম সভায় এ কোম্পানিকে প্রাথমিক গণ প্রস্তাবের (আইপিও) অনুমোদন দেয়া হয়।

সূত্র মতে, হামিদ ফ্রেবিক্সের আইপিওতে সাধারণ বিনিয়োগকারীরা আবেদন করতে পারবে ২ অক্টোবর পর্যন্ত। আর প্রবাসী বিনিয়োগকারীদের জন্য এ সুযোগ থাকবে ১১ অক্টোবর পর্যন্ত।

হামিদ ফ্রেবিক্সের মাধ্যমে শুরু হচ্ছে আইপিও নতুন পদ্ধতি পাইলট প্রজেক্ট। ব্যাংক ও ব্রোকারেজ হাউজের মাধ্যমে করা যাবে এই কোম্পানির আইপিও আবেদন। তাই নির্ধারিত ব্যাংকের শাখার পাশাপাশি নির্দিষ্ট স্টক ব্রোকার (ট্রেকহোল্ডার) ও মার্চেন্ট ব্যাংকের মাধ্যমে আবেদন জমা দিতে পারবেন বিনিয়োগকারীরা।

আইপিওতে কোম্পানিটি ৩ কোটি শেয়ার ইস্যু করবে। ১০ টাকা অভিহিত মূল্যের সাথে ২৫ টাকা প্রিমিয়ামসহ ৩৫ টাকা মূল্যে শেয়ার ছাড়বে কোম্পানিটি।

২০১৩ সালের ৩০ জুন শেষ হওয়া হিসাব বছরের নিরীক্ষিত হিসাবে শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) ছিল ৫.০৩ টাকা। আর শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) ছিল ৪১.১৪ টাকা। এ কোম্পানিটির ইস্যু ম্যানেজার হিসেবে রয়েছে আইসিবি ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড।

এদিকে প্রবাসী বিনিয়োগকারীদের আইপিওতে পাইলট প্রজেক্ট প্রক্রিয়ায় আবেদন করার বিষয় বিস্তারিত জানতে নিচের লিঙ্কে যোগাযোগ করতে বলেছেন ডিএসই কর্তৃপক্ষ।

আরএসআরএমের লেনদেন শুরু আজ

উভয় স্টক এক্সচেঞ্জে লেনদেন শুরু করতে যাচ্ছে রতনপুর স্টিল রি-রোলিং মিলস লিমিটেড (আরএসআরএম)। আজ সোমবার শুরু হবে প্রাথমিক গণপ্রস্তাব প্রক্রিয়া (আইপিও) শেষ করা আরএসআরএমের লেনদেন। কোম্পানি সিএফও ওবায়দুর রহমান (এফসিএ) শেয়ারনিউজ২৪.কমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

জানা গেছে, আজ ‘এন’ ক্যাটাগরির আওতায় হবে এ শেয়ারের লেনদেন। ডিএসইতে এ কোম্পানির ট্রেডিং কোড হবে”RSRMSTEEL” এবং কোম্পানি কোড হবে ১৩২৩৫।

উল্লেখ্য, গত ১৩ জুলাই আরএসআরএমের আইপিও আবেদন জমা নেওয়া শুরু হয়। এর মধ্যে সাধারণ বিনিয়োগকারীরা আবেদন করার সুযোগ পান ১৭ জুলাই পর্যন্ত। প্রবাসী বিনিয়োগকারীদের জন্য সুযোগ ছিল ২৬ জুলাই পর্যন্ত।

কোম্পানিটি অভিহিত মূল্য ১০ টাকার সঙ্গে ৩০ টাকা অধিমূল্য বা প্রিমিয়ামসহ প্রতিটি শেয়ারের নির্দেশক মূল্য নির্ধারণ করে ৪০ টাকা এবং ২০০টি শেয়ারে মার্কেট লট।

আরএসআরএম শেয়ারবাজার ২ কোটি ৫০ লাখ শেয়ার ছেড়ে ১০০ টাকা সংগ্রহ করছে বলে জানা গেছে।

খান ব্রাদার্সের ড্র বৃহস্পতিবার

প্রাথমিক গণপ্রস্তাবে (আইপিও) অনুমোদন পাওয়া খান ব্রাদার্স পিপি ওভেন ব্যাগ লিমিটেডের লটারি ড্র বৃহস্পতিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত হবে। কোম্পানির সচিব তপন কুমার সরকার শেয়ারনিউজ২৪,কমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এদিন সকাল ১০টা ৩০মিনিটে ইঞ্জিনিয়ারিং ইনিস্টিউিট রমনায় অনুষ্ঠিত হবে এ লটারির ড্র।

জানা যায়, খান ব্রাদার্স আইপিওতে মোট ৮৭৩ কোটি টাকার আবেদন জমা পরে। যা মোট আবেদনের ৪৩ গুণ প্রায়। আইপিওতে স্থানীয় বিনিয়োগকারীরা আবেদনের সুযোগ পান ২৪ থেকে ২৮ আগস্ট পর্যন্ত। এবং প্রবাসী বিনিয়োগকারীরা ৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত আবেদন করার সুযোগ পান।

খান ব্রাদার্স অভিহিত মূল্যে ২ কোটি শেয়ার ছেড়ে ২০ কোটি টাকা সংগ্রহ করেছে। সংগৃহীত অর্থে কোম্পানিটি মেশিনারিজ কেনা, বিল্ডিং নির্মাণ, ব্যাংক ঋণ পরিশোধ ও চলতি মূলধন বাড়াবে বাড়াবে বলে জানা গেছে।

এ কোম্পানিটি ইস্যু ম্যানেজার হিসেবে কাজ করছে এএফসি ক্যাপিটাল লিমিটেড এবং সিএমএসএল ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড।

উল্লেখ্য, এর আগে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৫২১তম সভায় কোম্পানিটির আইপিও অনুমোদন দেয়া হয়।

ওয়েস্টার্ন মেরিনের রিফান্ড বিতরণ শুরু আজ

আজ সোমবার থেকে শুরু হবে ওয়েস্টার্ন মেরিন শিপইয়ার্ডের অ্যালটমেন্ট লেটার বা বরাদ্দপত্র ও রিফান্ড ওয়ারেন্ট বিতরণ। কোম্পানি সূত্রে জানা গেছে, সোমবার থেকে শুরু হয়ে ২০ সেপ্টেম্বর, শনিবার পর্যন্ত রিফান্ড বিতরণের সময়সীমা নির্ধারণ করা হয়েছে। প্রতিদিন সকাল ৯ টা থেকে বিকাল ৪ টা পর্যন্ত ব্যাংক রশিদের বিনিময়ে বরাদ্দপত্র এবং রিফান্ড ওয়ারেন্ট বিতরণ করা হবে।পল্টন কমিউনিটি সেন্টার ও ঢাকা জেলা ক্রীড়া সংস্থা ঝিলপাড়ে বরাদ্দপত্র এবং রিফান্ড ওয়ারেন্ট বিতরণ করা হবে । ১৫ সেপ্টেম্বর পল্টন কমিউনিটি সেন্টারে বিতরণ করা হবে ঢাকা ব্যাংক লিমিটেডের অনুমোদিত সকল শাখা সমূহের বরাদ্দপত্র ও রিফান্ড ওয়ারেন্ট।ওইদিন ঢাকা জেলা ক্রীড়া সংস্থায় বিতরণ করা হবে ব্রাক ব্যাংক লিমিটেড অনুমোদিত সকল শাখা সমূহের বরাদ্দপত্র ও রিফান্ড ওয়ারেন্ট। ১৬ সেপ্টেম্বর পল্টন কমিউনিটি সেন্টারে ন্যাশনাল ব্যাংক অনুমোদিত নিচের শাখার বরাদ্দপত্র ও রিফান্ড ওয়ারেন্ট বিতরণ করা হবে। শাখাগুলো হচ্ছে- আসাদ গেইট, বাবু-বাজার, বনানী, বংশাল রোড, ধানমন্ডি, দিলকুশা, এলিফ্যান্ট রোড, গুলশান, ইমামগঞ্জ, ইসলামপুর, যাত্রাবাড়ী, লেক সার্কাস, মালিবাগ, মিরপুর, মহাখালী, মোহাম্মদপুর, মতিঝিল, নিউ ইস্কাটন, নর্থব্রক হল, প্রগতি স্বরণী, রাইফেলস স্কয়ার, রোকেয়া স্বরণী, সাভার বাজার, উত্তরা শাখা ও জেড. এইচ, সিকদার এমসি শাখা। এছাড়া ঢাকা জেলা ক্রীড়া সংস্থায় মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক লিমিটেডর নিচের শাখার বরাদ্দপত্র ও রিফান্ড ওয়ারেন্ট বিতরণ করা হবে। এছাড়া বুধবার ১৭ সেপ্টেম্বর পল্টন কমিউনিটি সেন্টারে বিতরণ করা হবে ন্যাশনাল ব্যাংক লিমিটেডের ফরেন এক্সচেঞ্জ, কাওরান বাজার শাখা এবং কমার্শিয়াল ব্যাংক অব সিলন পিএলসি অনুমোদিত সকল শাখা সমূহের বরাদ্দপত্র ও রিফান্ড ওয়ারেন্ট। ওইদিন ঢাকা জেলা ক্রীড়া সংস্থায় মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক লিমিটেডের প্রিন্সিপাল শাখা এবং ঢাকার বাইরে অনুমোদিত সকল শাখার রিফান্ড বিতরন করা হবে। পল্টন কমিউনিটি সেন্টারে ১৮ সেপ্টেম্বর ওয়ান ব্যাংক লিমিটেডের নিচের শাখার বরাদ্দপত্র ও রিফান্ড ওয়ারেন্ট বিতরণ করা হবে। শাখাগুলো হচ্ছে- বনানী, বনশ্রী, বংশাল, বাসাবো, ধানমন্ডি, এলিফ্যান্ট রোড, গণকবাড়ী (ইপিজেড), গুলশান, ঈমামগঞ্জ, জগন্নাতপুর, যাত্রাবাড়ী, জয়পাড়া, কাকরাইল, কাওরান বাজার, মিরপুর, মগবাজার, মতিঝিল, নওয়াবগঞ্জ, প্রগতি স্বরণী, রিং রোড শাখা এবং উত্তরা শাখা। ওইদিন ঢাকা জেলা ক্রীড়া সংস্থায় সিটি ব্যাংক অনুমোদিত ঢাকা ব্যাংক অনুমোদিত সকল শাখার রিফান্ড বিতরণ করা হবে। ২০ সেপ্টেম্বর, শনিবার পল্টন কমিউনিটি সেন্টারে ওয়ান ব্যাংকের প্রিন্সিপাল শাখা এবং ঢাকার বাইরে অনুমোদিত সকল শাখার রিফান্ড বিতরণ করা হবে। ওইদিন ঢাকা জেলা ক্রীড়া সংস্থা বিতরণ করা হবে প্রবাসী বাংলাদেশিদের (এনআরবি) সকল মিউচুয়্যাল ফান্ড এবং আই/এ বিনিয়োগ হিসাব সমূহের বরাদ্দপত্র ও রিফান্ড ওয়ারেন্ট। প্রত্যেক বিনিয়োগকারী তাদের নিজ নিজ ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে তাদের রিফান্ড ওয়ারেন্ট সংগ্রহ করতে পারবেন। যেসব বিনিয়োগকারীর ব্যাংক অ্যাকাউন্টে অনলাইন সুবিধা চালু নেই তাদের উপোরক্ত ঠিকানা থেকে রিফান্ড সংগ্রহ করতে হবে। তবে যেসব বিনিয়োগকারী এবি ব্যাংক লিমিটেড, আল-আরফা ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড, আল-ফালাহ ব্যাংক, ব্যাংক এশিয়া লিমিটেড, ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেড, কমার্শিয়াল ব্যাংক অব সিলন পিএলসি, ঢাকা ব্যাংক লিমিটেড, ডাচ্-বাংলা ব্যাংক লিমিটেড, ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেড, এক্সিম ব্যাংক লিমিটেড, ফাস্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড, যমুনা ব্যাংক লিমিটেড, মার্কেন্টাইল ব্যাংক লিমিটেড, মিউচুয়্যাল ট্রাস্ট ব্যাংক লিমিটেড, ন্যাশনাল ব্যাংক লিমিটেড, ন্যাশনাল ব্যাংক অব পাকিস্তান, এনসিসি ব্যাংক লিমিটেড, ওয়ান ব্যাংক লিমিটেড, প্রিমিয়ার ব্যাংক লিমিটেড, প্রাইম ব্যাংক লিমিটেড, শাহাজালাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড, সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড, সাউথইস্ট ব্যাংক লিমিটেড, স্ট্যান্ডার্ড চার্টাড ব্যাংক, স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়া, দি সিটি ব্যাংক ট্রাস্ট ব্যাংক এবং ওরি ব্যাংকে যাদের অ্যাকাউন্ট আছে তাদের নিজ নিজ অ্যাকাউন্টে রিফান্ড জমা হয়ে যাবে। তবে প্রবাসী বিনিয়োগকারীরা এ সুযোগ পাবে না। উল্লেখ্য, যাদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে টাকা নিদৃস্ট সময়ের মধ্যে জমা হবে না, ১২ থেকে ১৯ অক্টোবর কেন্দ্রীয় কচিকাঁচার মেলায় যোগাযোগ করতে হবে। সময় সকাল ৯ টা ৩০ থেকে ৪ টা পর্যন্ত।

source: sharenews24