Monthly Archives: June 2014

খান ব্রাদার্সের আইপিও অনুমোদন

খান ব্রাদার্স পিপি ওভেন ব্যাগ BÛvwóªR লিমিটেডের আইপিও অনুমোদন করেছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। কমিশনের ৫২১তম সভায় মঙ্গলবার কোম্পানিটির প্রাথমিক গণ প্রস্তাবের (আইপিও) এই অনুমোদন দেওয়া হয়। বিএসইসি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

আইপিওতে কোম্পানিটি ২ কোটি শেয়ার ইস্যু করবে। ১০ টাকা অভিহিত মূল্যেই শেয়ার ছাড়বে কোম্পানিটি। এই শেয়ারের প্রিমিয়াম থাকছে না।

আইপিও’র মাধ্যমে কোম্পানিটি বাজার থেকে ২০ কোটি টাকা উত্তোলন করবে। পুঁজিবাজার থেকে উত্তোলিত টাকা কোম্পানিটি মেশিনারিজ ক্রয়, দালান কোঠা নির্মাণ, ব্যাংক ঋণ পরিশোধ, চলতি মূলধন সংস্থান এবং আইপিওর খরচে খাতে ব্যয় করবে।

৩০ জুন ২০১৩ সমাপ্ত হিসাব বছরের নিরীক্ষিত হিসাবসহ বিগত পাঁচ বছর অনুযায়ী কোম্পানির (ওয়েটেড এভারেজ) শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) ছিল ৮৭ পয়সা। আর শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য বা এনএভি ছিল ১৪ টাকা ৬৯ পয়সা।২০১৩ সালে কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় বা ইপিএস দাঁড়ায় ১ টাকা ৬৭ পয়সা।

এই কোম্পানির ইস্যু ম্যানেজার হিসেবে কাজ করছে দুটি কোম্পানি। এরা এএফসি ক্যাপিটাল  লিমিটেড এবং weএমএসএল ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড।

খান ব্রাদার্স পিপি ওভেন ব্যাগ লিমিটেড খান ব্রাদার্স গ্রুপের একটি প্রতিষ্ঠান। গ্রুপটি জাহাজ নির্মাণ, শিপিং লাইন্স, গার্মেন্টস, পলিমার বিজনেসে যুক্ত। খান ব্রাদার্স স্লিপওয়েজ অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কস দেশের সবচেয়ে বড় শিল্প ইয়ার্ড।

খান ব্রাদার্স পিপি ওভেন ব্যাগ BÛvwóªR লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তোফায়েল Kwei খান বলেন, বর্তমানে কোম্পানিটির বার্ষিক টার্নওভার প্রায় ১০০ কোটি টাকা। বছরে ৬০ লাখ পিস ব্যগ উৎপাদন করছে তার কোম্পানি। আইপিও’র মাধ্যমে সংগৃহীত অর্থে এফআইবিসি ব্যাগ উৎপাদনের ইউনিট স্থাপন করা হবে

http://www.kbgbd.com/

ফারইস্ট নিটিংয়ের আইপিও ড্র ১৭ জুলাই

ফারইস্ট নিটিং অ্যান্ড ডায়িং ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের আইপিও লটারির ড্র আগামী ১৭ জুলাই, বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টায় রাজধানীর রমনায় ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে অনুষ্ঠিত হবে। কোম্পানি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

এর আগে কোম্পানির প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) আবেদন ১৫ জুন শুরু হয়ে ১৯ জুন পর্যন্ত গ্রহণ করা হয়। তবে প্রবাসী বাংলাদেশীদের জন্য আবেদনের সুযোগ ছিল ২৮ জুন, শনিবার পর্যন্ত।

জানা যায়, ফারইস্ট নিটিং অ্যান্ড ডায়িং ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড ১০ টাকা অভিহিত মূল্যের সাথে ১৭ টাকা প্রিমিয়ামসহ শেয়ারপ্রতি নেয়া ২৭ টাকা। কোম্পানিটি ২ কোটি ৫০ লাখ শেয়ার ইস্যু করে বাজার থেকে সংগ্রহ করার কথা ৬৭ কোটি ৫০ লাখ টাকা।

কোম্পানির ৫ বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী ৩০ জুন ২০১৩ সমাপ্ত অর্থবছরে শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২.৫৪ টাকা এবং শেয়ারপ্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ১৯.৮০ টাকা।

কোম্পানিটি শেয়ারবাজার থেকে টাকা সংগ্রহ করে বিএমআরই, ব্যাংকের টার্ম ঋণ পরিশোধ এবং আইপিও খাতে ব্যয় করবে।

কোম্পানির ইস্যু ব্যবস্থাপকের দায়িত্বে রয়েছে আইডিএলসি ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড। 

শেয়ারনিউজ২৪

ফারইস্ট নিটিংয়ের আইপিওতে ৬ গুণ আবেদন জমা

ফারইস্ট নিটিং অ্যান্ড ডায়িং ইন্ডাস্ট্রিজের প্রাথমিক গণপ্রস্তাবে (আইপিও) ৬ গুণ আবেদন জমা হয়েছে। আইপিওর মাধ্যমে ৬৭ কোটি ৫০ লাখ টাকা সংগ্রহের প্রস্তাব করা হলে মোট ৩৯৫ কোটি ১৮ লাখ ৪৬ হাজার ৭৭৫ টাকার আবেদন জমা পড়েছে। গতকাল চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা যায়।
কোম্পানিটির আইপও শেয়ার বরাদ্দ পেতে স্থানীয় বিনিয়োগকারীরা ৩৯৪ কোটি ১৮ লাখ ৪৬ হাজার ৭৭৫ টাকা ও এনআরবি বিনিয়োগকারীরা ১ কোটি টাকার আবেদন জমা দিয়েছেন। আগামী ১৭ জুলাই সকাল সাড়ে ১০টায় রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে কোম্পানিটির আইপিও লটারি ড্র অনুষ্ঠিত হবে।
জানা যায়, শেয়ারবাজার থেকে ৬৭ কোটি ৫০ লাখ টাকা সংগ্রহ করতে ২ কোটি ৫০ লাখ শেয়ার বরাদ্দ দেবে কোম্পানিটি। অভিহিত মূল্য ১০ টাকার সঙ্গে ১৭ টাকা প্রিমিয়ামসহ প্রতিটি শেয়ারের নির্দেশক মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ২৭ টাকা। স্থানীয় বিনিয়োগকারীরা এ কোম্পানির আইপিওতে ১৫-১৯ জুন পর্যন্ত আবেদন করার সুযোগ পান। আর  প্রবাসী বিনিয়োগকারীদের ক্ষেত্রে এ সুযোগ ছিল ২৮ জুন পর্যন্ত।
২০১৩ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত বিগত পাঁচ বছরের আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী, ফারইস্ট নিটিংয়ের শেয়ারপ্রতি আয় হয়েছে ২ টাকা ২৮ পয়সা ও শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য ১৯ টাকা ৮ পয়সা। কোম্পানিটি শেয়ারবাজার থেকে অর্থ সংগ্রহ করে বিএমআরই, ব্যাংকের মেয়াদি ঋণ পরিশোধ এবং আইপিও খরচ খাতে ব্যয় করবে। এর ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে আইডিএলসি ইনভেস্টমেন্টস লিমিটেড।
 

বণিক বার্তা

জুলাই মাসে দুই কোম্পানির আইপিও শুরু

জুলাই মাসে দুই কোম্পানির প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) আবেদন জমা নেওয়া শুরু হবে। কোম্পানি দুইটি হচ্ছে- সাইফ পাওয়ারটেক ও রতনপুর স্টিল রি-রোলিং মিলস লিমিটেড। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সাইফ পাওয়ারটেকের আইপিও শুরু হবে আগামী ৬ ‍জুলাই, রবিবার থেকে। স্থানীয় বিনিয়োগকারীরা এ কোম্পানির আইপিওতে ১০ জুলাই পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন। প্রবাসী বিনিয়োগকারীদের জন্য আবেদনের শেষ সময় ১৯ জুলাই।

কোম্পানিটি পুঁজিবাজারে ১ কোটি ২০ লাখ শেয়ার ছেড়ে ৩৬ কোটি টাকা সংগ্রহ করবে। অভিহিত মূল্য ১০ টাকার সঙ্গে ২০ টাকা অধিমূল্যসহ (প্রিমিয়াম) এ শেয়ারের নির্দেশক মূল্য ধরা হয়েছে ৩০ টাকা। মার্কেট লট ২০০টি শেয়ারে।

আইপিওর আগে সাইফ পাওয়ারটেকের পরিশোধিত মূলধন ৪৩ কোটি ৮৯ লাখ ৪০ হাজার টাকা এবং আইপিওর পরে পরিশোধিত মূলধন দাঁড়াবে ৫৫ কোটি ৮৯ লাখ ৪০ হাজার টাকা।

২০১৩ সালের ৩০ জুন শেষ হওয়া অর্থবছরের আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী সাইফ পাওয়ারটেকের প্রতি শেয়ারে আয় ২.০১ টাকা ও শেয়ারপ্রতি সম্পদ ২৪.২৯ টাকা।

এ কোম্পানির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব পালন করছে আইসিবি ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট ও নিরীক্ষকের দায়িত্ব পালন করছে আতা খান অ্যান্ড কোং।

রতনপুর স্টিল রি-রোলিং মিলস লিমিটেডের আইপিওতে স্থানীয় বিনিয়োগকারীরা ১৩ জুলাই থেকে ১৭ জুলাই পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন। আর প্রবাসী বিনিয়োগকারীরা ২৬ জুলাই পর্যন্ত আবেদনর করতে পারবেন।

কোম্পানিটি পুঁজিবাজারে ২ কোটি ৫০ লাখ শেয়ার ছেড়ে ১০০ কোটি টাকা সংগ্রহ করবে। অভিহিত মূল্য ১০ টাকার সঙ্গে ৩০ টাকা প্রিমিয়ামসহ এ শেয়ারের নির্দেশক মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৪০ টাকা এবং মার্কেট লট ২০০টি শেয়ারে।

আইপিওর আগে এ কোম্পানির পরিশোধিত মূলধন ২৯ কোটি ৬০ লাখ টাকা ও আইপিওর পরে পরিশোধিত মূলধন দাঁড়াবে ৫৪ কোটি ৬০ লাখ টাকা।

২০১৩ সালের ৩০ জুন শেষ হওয়া অর্থবছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী রতনপুর স্টিলসের শেয়ারপ্রতি আয় ৫.৬৩ টাকা ও শেয়ারপ্রতি সম্পদ ২১.৮০ টাকা।

এ কোম্পানির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব পালন করছে জনতা ক্যাপিটাল অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড ও ট্রাস্ট ব্যাংক ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড। নিরীক্ষকের দায়িত্ব পালন করছে হোদা ভাসী অ্যান্ড কোং।

দ্য রিপোর্ট

 

সুহৃদের আইপিওতে ৪২ গুণ টাকার আবেদন জমা

প্রাথমিক গণ প্রস্তাবে (আইপিও) সুহৃদ ইন্ডাষ্ট্রিজ লিমিটেডে ৫৯০ কোটি টাকা বা ৪২ গুণ টাকার আবেদন জমা পড়েছে। সিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র মতে, কোম্পাটির আইপিওতে ১২ জুন পর্যন্ত মোট ৫৯০ কোটি ৮৩ লাখ ৭৪ হাজার ৯৫৬ টাকার আবেদন জমা পড়েছে। যা কোম্পানিটির উত্তোলিনকৃত টাকার চেয়ে ৪১.২০ গুণ বেশি। এর মধ্যে ক্ষতিগ্রস্ত, সাধারণ ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড খাতের বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৫৮৭ কোটি ৮৪ লাখ ৮৯ হাজার ৯৫৬ টাকার এবং প্রবাসি বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ২ কোটি ৯৮ লাখ ৮৫ হাজার টাকার আবেদন জমা পড়েছে।

কোম্পানিটির আইপিওতে গত ৮ জুন আবেদন শুরু হয়ে ১২ জুন শেষ হয়েছে। তবে প্রবাসি বিনিয়োগকারীদের জন্য এ সুযোগ ছিলো ২১ জুন পর্যন্ত।

কোম্পানিটি শেয়ারবাজার থেকে ১৪ কোটি টাকা উত্তোলনের জন্য ১ কোটি ৪০ লাখ শেয়ার ছেড়েছে। প্রতিটি শেয়ারের অভিহিত মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১০ টাকা। ৫০০টি শেয়ারে মার্কেট লট।

আইপিওর মাধ্যমে উত্তোলিত অর্থ দিয়ে কোম্পানিটি ফ্যাক্টরি বিল্ডিং সম্প্রসারণ, মেশিনারিজ ক্রয়, গ্যাস জেনারেটর ক্রয়, ব্যাংক লোন পরিশোধ এবং আইপিও খরচ খাতে ব্যয় করবে।

৩০ জুন ২০১৩ সমাপ্ত অর্থবছরের আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.০৯ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভি) হয়েছে ১৪.১১ টাকা (পুন:মূল্যায়িত)।

কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে আইসিবি ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড।

এর আগে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৫১৪ তম কমিশন সভায় কোম্পানিটির আইপিও অনুমোদন করা হয়। 

 

শেয়ারনিউজ২৪

 

ওয়েস্টার্ন মেরিনের আইপিও আবেদন শুরু ১০ আগস্ট

প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) অনুমোদন পাওয়া ওয়েস্টার্ন মেরিন শিপইয়ার্ড লিমিটেডের আবেদন ১০ আগস্ট থেকে শুরু হবে। সংশ্লিষ্ট কোম্পানি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা যায়, কোম্পানিটির আইপিও আবেদন জমা দেয়া যাবে ২৩ আগস্ট পর্যন্ত। বাংলাদেশী বিনিয়োগকারীরা ১৪ আগস্ট এবং অনিবাসী বাংলাদেশীরা ২৩ আগস্ট পর্যন্ত এ আবেদন জমা দিতে পারবেন। উল্লেখ্য, এর আগে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৫১৯তম সভায় কোম্পানিটির আইপিও অনুমোদিত হয়।

আইপিওর মাধ্যমে কোম্পানিটি ৪ কোটি ৫০ লাখ শেয়ার ইস্যু কওে পুঁজিবাজার থেকে ১৫৭ কোটি ৫০ লাখ টাকা সংগ্রহ করবে। সংগৃহীত অর্থে কোম্পানির ব্যাংকঋণ পরিশোধ, অবকাঠামো উন্নয়ন এবং আইপিও খাতে ব্যয় করবে।

কোম্পানির ১০ টাকা অভিহিত মূল্যের শেয়ারের জন্য প্রিমিয়াম ধরা হয়েছে ২৫ টাকা। অর্থাৎ প্রিমিয়ামসহ প্রতিটি শেয়ারের মূল্য দাঁড়াবে ৩৫ টাকা।

৩০ জুন ২০১৩ সমাপ্ত বছরে কোম্পানির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩.৮৭ টাকা। শেয়ারপ্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ৪০.২৭ টাকা।

কোম্পানিটির ইস্যুয়ার হিসেবে রয়েছে প্রাইম ফিন্যান্স ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড, আইসিবি ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড এবং ইসি সিকিউরিটিজ লিমিটেড।

শেয়ারনিউজ২৪

আগামীকাল তুং হাই নিটিংয়ের লটারির ড্র

আবেদনকারীদের মধ্যে শেয়ার বরাদ্দ দেয়ার জন্য আগামীকাল ১৯ জুন, বৃহস্পতিবার তুং হাই নিটিং অ্যান্ড ডাইং লিমিটেডের প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) লটারির ড্র অনুষ্ঠিত হবে। কোম্পানি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, কোম্পানিটির আইপিও লটারির ড্র আগামীকাল সকাল সাড়ে ১০টায়, রাজধানীর রমনায় অবস্থিত ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হবে।

এর আগে কোম্পানিটির আইপিওতে ১৮ থেকে ২২ মে পর্যন্ত আবেদন গ্রহণ করা হয়। আর প্রবাসিদের জন্য এ সুযোগ ছিলো ৩১ মে পর্যন্ত। কোম্পানিটির আইপিওতে মোট ৮৭০ কোটি ১ লাখ ২৪ হাজার ৯৭৫ টাকার আবেদন জমা পড়েছে। এর মধ্যে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৫৪৩ কোটি ৯৩ লাখ ৭৪ হাজার ৯৭৫ টাকার, ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৬২ কোটি ০৬ লাখ ৮০ হাজার টাকার, প্রবাসি বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৩৬ কোটি ৪১ লাখ ৭০ হাজার টাকার এবং মিউচ্যুয়াল ফান্ড খাতের বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ২২৭ কোটি ৫৯ লাখ টাকার আবেদন জমা পড়েছে। কোম্পানিটির আইপিওতে জমাকৃত টাকা উত্তোলিত টাকার চেয়ে ২৩.৮৬ গুণ বেশি।

তু হাই নিটিং শেয়ারবাজার থেকে ৩৫ কোটি টাকা উত্তোলনের জন্য ৩ কোটি ৫০ লাখ শেয়ার ছেড়েছে। প্রতিটি শেয়ারের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১০ টাকা, ৫০০টি শেয়ারে মার্কেট লট নির্ধারণ করা হয়েছে।

আইপিওর মাধ্যমে সংগৃহীত অর্থ দিয়ে কোম্পানিটি চলতি মূলধন, মেশিনারিজ ক্রয়, ব্যাংকের টার্ম ঋণ এবং আইপিও খাতে ব্যয় করবে।

৩১ ডিসেম্বর ২০১২ সমাপ্ত অর্থবছরের আর্থিক হিসাব অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৩৯ টাকা এবং শেয়ারপ্রতি সম্পদ (এনএভি) হয়েছে ১৫.১১ টাকা।

কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে এএফসি ক্যাপিটাল লিমিটেড এবং সহ-ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে ইমপেরিয়াল ক্যাপিটাল লিমিটেড।

এর আগে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৫১০ তম কমিশন সভায় কোম্পানিটির আইপিও অনুমোদন করা হয়। 

 

শেয়ারনিউজ২৪

লটারির ড্র বৃহস্পতিবার তুং হাই নিটিংয়ে ২৫ গুণ টাকার আবেদন জমা

প্রাথমিক গণ প্রস্তাবে (আইপিও) তুং হাই নিটিং অ্যান্ড ডাইং লিমিটেডে ৮৭০ কোটি টাকার উপর আবেদন জমা পড়েছে। যা কোম্পানির উত্তোলিত টাকার চেয়ে প্রায় ২৫ গুণ। সিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

এদিকে আবেদনকারীদের মধ্যে শেয়ার বরাদ্দ দেয়ার জন্য কোম্পানিটির লটারির ড্র আগামী ১৯ জুন, বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত হবে। ওই দিন বেলা ১১টায় রাজধানীর রমনায় অবস্থিত ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হবে।

জানা গেছে, কোম্পানিটির আইপিওতে ৮৭০ কোটি ১ লাখ ২৪ হাজার ৯৭৫ টাকার আবেদন জমা পড়েছে। এর মধ্যে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৫৪৩ কোটি ৯৩ লাখ ৭৪ হাজার ৯৭৫ টাকার, ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৬২ কোটি ০৬ লাখ ৮০ হাজার টাকার, প্রবাসি বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৩৬ কোটি ৪১ লাখ ৭০ হাজার টাকার এবং মিউচ্যুয়াল ফান্ড খাতের বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ২২৭ কোটি ৫৯ লাখ টাকার আবেদন জমা পড়েছে। কোম্পানিটির আইপিওতে জমাকৃত টাকা উত্তোলিত টাকার চেয়ে ২৩.৮৬ গুণ বেশি।

এর আগে কোম্পানিটির আইপিওতে ১৮ থেকে ২২ মে পর্যন্ত আবেদন গ্রহণ করা হয়। আর প্রবাসিদের জন্য এ সুযোগ ছিলো ৩১ মে পর্যন্ত।

তু হাই নিটিং শেয়ারবাজার থেকে ৩৫ কোটি টাকা উত্তোলনের জন্য ৩ কোটি ৫০ লাখ শেয়ার ছেড়েছে। প্রতিটি শেয়ারের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১০ টাকা, ৫০০টি শেয়ারে মার্কেট লট নির্ধারণ করা হয়েছে।

আইপিওর মাধ্যমে সংগৃহীত অর্থ দিয়ে কোম্পানিটি চলতি মূলধন, মেশিনারিজ ক্রয়, ব্যাংকের টার্ম ঋণ এবং আইপিও খাতে ব্যয় করবে।

৩১ ডিসেম্বর ২০১২ সমাপ্ত অর্থবছরের আর্থিক হিসাব অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৩৯ টাকা এবং শেয়ারপ্রতি সম্পদ (এনএভি) হয়েছে ১৫.১১ টাকা।

কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে এএফসি ক্যাপিটাল লিমিটেড এবং সহ-ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে ইমপেরিয়াল ক্যাপিটাল লিমিটেড।

এর আগে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৫১০ তম কমিশন সভায় কোম্পানিটির আইপিও অনুমোদন করা হয়।

 শেয়ারনিউজ২৪