Monthly Archives: May 2014

রতনপুর রি-রোলিংয়ে আবেদন শুরু ১৩ জুলাই

প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) অনুমোদন পাওয়া রতনপুর স্টিল রি-রোলিং মিলস (আরএসআরএম) আবেদন গ্রহণ শুরু হবে আগামী ১৩ জুলাই, রোববার থেকে। কোম্পানি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, কোম্পানির আইপিওতে আবেদন গ্রহণ ১৩ জুলাই শুরু হয়ে শেষ হবে ১৯ জুলাই। তবে প্রবাসি বিনিয়োগকারীদের জন্য এ সুযোগ থাকছে ২৬ জুলাই পর্যন্ত।

জানা যায়, আরএসআরএম ২ কোটি ৫০ লাখ শেয়ার ছেড়ে শেয়ারবাজার থেকে ১০০ কোটি টাকা সংগ্রহ করবে। এজন্য ১০ টাকা অভিহিত মূল্যের সঙ্গে ৩০ টাকা প্রিমিয়ামসহ প্রতিটি শেয়ারের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৪০ টাকা।

আইপিওর মাধ্যমে সংগৃহীত অর্থ দিয়ে কোম্পানিটি চলতি মূলধন অর্থায়ন, ব্যাংকঋণ পরিশোধ ও আইপিও খাতে ব্যয় করবে।

৩০ জুন ২০১৩ সমাপ্ত অর্থবছরের নিরীক্ষিত হিসাবসহ গত ৫ বছরের প্রতিবেদন অনুযায়ী এ কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪.৫৮ টাকা এবং শেয়ারপ্রতি সম্পদ (এনএভি) হয়েছে ৫৩.৬৯ টাকা।

কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপকের দায়িত্বে রয়েছে জনতা ক্যাপিটাল অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড এবং ট্রাস্ট ব্যাংক ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড।

এর আগে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৫১৬তম সভায় কোম্পানিটির আইপিও অনুমোদন করা হয়।

শেয়ারনিউজ২৪

 

জুনে দুই কোম্পানির আইপিও আবেদন

প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) অনুমোদন পাওয়ার দুই কোম্পানিতে আবেদন শুরু হবে জুন মাসে। কোম্পানি দুটি হলো: সুহৃদইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড এবং ফার ইস্ট নিটিং অ্যান্ড ডায়িং ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজে আবেদন ৮ জুন থেকে ১২ জুন পর্যন্ত করা যাবে, তবে প্রবাসী বিনিয়োগকারীরা এ সুযোগ পাবে ২১ জুন পর্যন্ত আর ফারইস্ট নিটিং অ্যান্ড ডায়িংয়ে আবেদন ১৫ জুন থেকে ১৯ জুন পর্যন্ত করা যাবে, তবে প্রবাসী বিনিয়োগকারীরা ২৮ জুন পর্যন্ত আবেদন করতে পারবে।

সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজ শেয়ারবাজারে ১ কোটি ৪০ লাখ শেয়ার ছেড়ে ১৪ কোটি টাকা সংগ্রহ করবে আর ফারইস্ট নিটিং অ্যান্ড ডায়িং ২ কোটি ৫০ লাখ শেয়ার ছেড়ে ৬৭ কোটি ৫০ লাখ টাকা উত্তোলন করবে।

সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজের প্রতিটি শেয়ারের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১০ টাকা এবং ফার ইস্ট নিটিংয়ের ১০ টাকা অভিহিত মূল্যের সঙ্গে ১৭ টাকা প্রিমিয়ারসহ প্রতিটি শেয়ারের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ২৭ টাকা।

সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজের ৫০০টি শেয়ারে আর ফারইস্ট নিটিংয়ের ২০০টি শেয়ারে মার্কেট লট নির্ধারণ করা হয়েছে।

৩০ জুন ২০১৩ সমাপ্ত অর্থবছরের আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজের ইপিএস হয়েছে ১.০৯ টাকা ও এনএভি হয়েছে ১৪.১১ টাকা আর ফারইস্ট নিটিংয়ের ইপিএস হয়েছে ২.৫৪ টাকা ও এনএভি হয়েছে ১৯.০৮ টাকা।

শেয়ারনিউজ২৪

খুলনা প্রিন্টিংয়ের লটারির ড্র ৫ জুন

প্রাথমিক গণপ্রস্তাব (আইপিও) প্রক্রিয়া শেষে আবেদনকারীদের মধ্যে শেয়ার বরাদ্দ দেয়ার জন্য খুলনা প্রিন্টিং অ্যান্ড প্যাকেজিং লিমিটেডের লটারির ড্র আগামী ৫ জুন, বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত হবে। কোম্পানি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, খুলনা প্রিন্টিংয়ে মোট ২৮৩ কোটি ৯২ লাখ ৫০ হাজার টাকার আবেদন জমা পড়েছে। যা উত্তোলনকৃত টাকার চেয়ে ৭.০৯ গুণ। এর মধ্যে সাধারণ, ক্ষতিগ্রস্ত এবং মিউচ্যুয়াল ফান্ডে ২৬১ কোটি ৪২ লাখ ৫০ হাজার টাকার এবং প্রবাসি বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ২২ কোটি ৫০ লাখ টাকার আবেদন জমা পড়েছে।

এর আগে গত ৪ মে থেকে ৮ মে পর্যন্ত কোম্পানিটির আইপিওতে আবেদন গ্রহণ করা হয়। আর প্রবাসিদের জন্য এ সুযোগ ছিলো ১৭ মে পর্যন্ত।

কোম্পানিটি শেয়ারবাজার থেকে ৪০ কোটি টাকা সংগ্রহের জন্য ৪ কোটি শেয়ার ছেড়েছে। এ জন্য প্রতিটি শেয়ারের অভিহিত মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১০ টাকা এবং মার্কেট লট ৫০০ শেয়ারে।

আইপিওর মাধ্যমে সংগৃহীত অর্থ দিয়ে কোম্পানিটি চলতি মূলধন, ব্যাংকের মেয়াদি ঋণ এবং আইপিও খাতে ব্যয় করবে।

৩০ জুন ২০১৩ সমাপ্ত অর্থবছরের আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২.৮২ টাকা এবং শেয়ারপ্রতি সম্পদ (এনএভি) হয়েছে ২৪.২৬ টাকা।

কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপকের দায়িত্বে রয়েছে সোনালি ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড।

এর আগে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৫১২তম সভায় কোম্পানিটির আইপিও অনুমোদন দেয়া হয়।

শেয়ারনিউজ২৪

 

খুলনা প্রিন্টিংয়ে সাতগুণ আবেদন জমা

খুলনা প্রিন্টিং অ্যান্ড প্যাকেজিং কোম্পানি লিমিটেডের (কেপিপিএল) প্রাথমিক গণপ্রস্তাবে (আইপিও) সাতগুণ আবেদন জমা পড়েছে। আবেদনকারীদের মধ্যে শেয়ার বরাদ্দ দিতে আগামী ৫ জুন লটারি হতে পারে বলে কোম্পানির ইস্যু ব্যবস্থাপক সোনালী ইনভেস্টমেন্ট সূত্রে জানা গেছে।

কেপিপিএল পুঁজিবাজারে ৪ কোটি শেয়ারের বিপরীতে ৪০ কোটি টাকা সংগ্রহ করবে। এর বিপরীতে জমা পড়েছে ২৮৩ কোটি ৯২ লাখ ৫০ হাজার টাকার আবেদন। এর মধ্যে স্থানীয় বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ২৬১ কোটি ৪২ লাখ ৫০ হাজার টাকার ও প্রবাসী বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে জমা পড়েছে ২২ কোটি ৫০ লাখ টাকার আবেদন।

কোম্পানির চাহিদার চেয়ে বেশি আবেদন জমা পড়ায় আবেদনকারীদের মধ্যে শেয়ার বরাদ্দ দিতে আগামী ৫ জুন আইপিও লটারি করা হতে পারে বলে কেপিপিএলের ইস্যু ব্যবস্থাপক কোম্পানি সোনালী ইনভেস্টমেন্টের এক কর্মকর্তা দ্য রিপোর্টকে জানিয়েছেন।

উল্লেখ্য, গত ৪ মে থেকে এ কোম্পানির আইপিও আবেদন জমা নেওয়া শুরু হয়। স্থানীয় বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৮ মে ও প্রবাসীদের কাছ থেকে ১৭ মে পর্যন্ত আবেদন জমা নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। তবে ৬ মে উচ্চ আদালত এ কোম্পানির আইপিও আবেদন জমা নেওয়ার ওপর স্থগিতাদেশ দেয়। পরদিন অর্থাৎ ৭ মে হাইকোর্টের ওই আদেশের ওপর স্থগিতাদেশ দেয় চেম্বার জজ আদালত। পরবর্তী সময়ে আবেদনের সময়সীমা দুই কার্যদিবস বাড়ানো হয়।

দ্য রিপোর্ট

 

আইপিওর ব্যবহার বিধি লঙ্ঘন করেছে আরগন ডেনিমস

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত বস্ত্র খাতের কোম্পানি আরগন ডেনিমস প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) প্রসপেক্টাসে উল্লিখিত ব্যবহার বিধিমালা লঙ্ঘন করেছে। কোম্পানির ২০১৩ সালের ৩১ ডিসেম্বর সমাপ্ত হিসাব বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদনে নিরীক্ষক এমন মন্তব্য করেছেন।
কোম্পানির নিরীক্ষক তার মন্তব্য অংশে আপত্তি না তুলে ‘গুরুত্ব আরোপ’ (এমফাসিস অব মেটার) হিসেবে এমন মন্তব্য করেন। যেখানে নিরীক্ষক আইপিও তহবিলের অর্থ ঘোষিত ব্যবহার বিধিমালার বাইরে ব্যবহার করার হয়েছে বলে উল্লেখ করেছেন।
নিরীক্ষক আর্থিক প্রতিবেদনের নোট ৩৬.১ উল্লেখ করেন, প্রসপেক্টাসে আইপিও তহবিল থেকে স্বল্প মেয়াদি ঋণ অতিরিক্ত সমন্বয় করা হয়েছে। এছাড়া আইপিও-সংক্রান্ত অতিরিক্ত খরচ পরিশোধ করা হয়েছে। ব্রিজ ফিন্যান্স ও স্বল্প মেয়াদি ঋণের বিপরীতে আইপিও ফান্ড থেকে পরিশোধ করা হয়েছে। প্রকল্প সম্প্রসারণের লক্ষ্যে নির্মাণসামগ্রী কেনার বিপরীতে বিভিন্ন সরবরাহকারী ও ঠিকাদারদের চেকের পরিবর্তে আইপিও তহবিল থেকে নগদে পরিশোধ করা হয়েছে।
এসব বিষয়ে কোম্পানি কর্তৃপক্ষ পরিস্থিতিভিত্তিক ব্যাখ্যা দিয়েছেন বলে জানান নিরীক্ষক। তবে আইপিওর অর্থ ভিন্ন খাতে ব্যবহারের বিষয়টির প্রতি গুরুত্বারোপ করেছেন নিরীক্ষক।
প্রসঙ্গত. আইপিওর মাধ্যমে আরগন ডেনিমসকে ১৩২ কোটি টাকা সংগ্রহের অনুমোদন দেয় শেয়ারবাজার নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। কোম্পানির ১০ টাকা অভিহিত মূল্যের প্রতিটি শেয়ারের বরাদ্দমূল্য ৩৪ টাকা প্রিমিয়ামসহ নির্ধারণ করা হয় ৪৪ টাকা, যা পরে কমিয়ে ৩৫ টাকা করা হয়। বরাদ্দমূল্য কমায় কোম্পানিটি ১০৫ কোটি টাকা সংগ্রহ করে আরগন ডেনিমস। ২০১১ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) করে ৫ টাকা ৪৬ পয়সা। শেয়ারবাজার থেকে সংগৃহীত অর্থ কোম্পানিটি ব্যাংক ঋণ পরিশোধ, প্রকল্প সম্প্রসারণ এবং প্রাথমিক গণপ্রস্তাব খাতে ব্যয় করবে বলে উল্লেখ করে।
প্রসপেক্টাসের কোম্পানিটি ১৬ কোটি ৪০ লাখ টাকা ঋণ পরিশোধের কথা উল্লেখ করে। এর মধ্যে ওয়ান ব্যাংকের ১১ কোটি ৫০ লাখ ও মার্কেন্টাইল ব্যাংকের ৪ কোটি ৯০ লাখ টাকা স্বল্প মেয়াদি ঋণ পরিশোধ করা হবে বলে আইপিওর অর্থ ব্যবহার বিধিমালায় বলা হয়।
এছাড়া ব্যবসা সম্প্রসারণ বাবদ ৮৪ কোটি ৮০ লাখ টাকা ব্যয় করা হবে বলে জানায় কোম্পানিটি। এর মধ্যে সিভিল ওয়ার্ক বাবদ ২১ কোটি ৬৩ লাখ ৯৫ হাজার ও মেশিনারিজ বাবদ ৬৩ কোটি ১৬ লাখ ৪ হাজার টাকা ব্যয় করা হবে বলে জানানো হয়।
এদিকে কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদ পরিশোধিত মূলধন বৃদ্ধির জন্য রাইট শেয়ার ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কোম্পানিটি শেয়ারবাজারে ১০টি সাধারণ শেয়ারের বিপরীতে তিনটি রাইট শেয়ার ছাড়বে। ১০ টাকা অভিহিত মূল্যের সঙ্গে ১২ টাকা প্রিমিয়ামসহ প্রতিটি শেয়ারের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ২২ টাকা। কোম্পানিটি রাইট শেয়ার অনুমোদনের জন্য শেয়ারবাজার নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থা বিএসইসিতে আবেদন করেছে।
২০১৩ সালে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত এ কোম্পানি ২০১২ সালের সমাপ্ত হিসাব বছরের জন্য ২০ শতাংশ বোনাস শেয়ার লভ্যাংশ হিসেবে দেয়। নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুসারে ওই সময়ে কর-পরবর্তী মুনাফা হয়েছে ১৩ কোটি ৫৯ লাখ ২০ হাজার টাকা, ইপিএস ৪ টাকা ৫১ পয়সা ও শেয়ারপ্রতি নেট সম্পদমূল্য (এনএভি) ২৯ টাকা ২৯ পয়সা।
এদিকে সর্বশেষ কার্যদিবসে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) এ শেয়ারের দর কমেছে ১ দশমিক শূন্য ৫ শতাংশ বা ৬০ পয়সা। সারা দিন এর দর ৫৫ টাকা ৮০ পয়সা থেকে ৫৮ টাকা ৭০ পয়সায় ওঠানামা করে। সর্বশেষ ৫৬ টাকা ৮০ পয়সায় এর লেনদেন হয়, যা দিন শেষে দাঁড়ায় ৫৬ টাকা ৪০ পয়সায়। ওইদিন ৩ লাখ ২ হাজার ৪০০ শেয়ার ৩৯৫ বারে
লেনদেন হয়।
এ কোম্পানির অনুমোদিত মূলধন ১০০ কোটি ও পরিশোধিত মূলধনের পরিমাণ ৮২ কোটি ৮০ লাখ টাকা। রিজার্ভে রয়েছে ৪৩ কোটি ২৫ লাখ টাকা। বাজারে মোট শেয়ার ৮ কোটি ২৮ লাখ; যার মধ্যে ৪৯ দশমিক ২৪ শতাংশ উদ্যোক্তা-পরিচালক, ১৫ দশমিক ২১ প্রাতিষ্ঠানিক ও ৩৫ দশমিক ৫৫ শতাংশ রয়েছে সাধারণ বিনিয়োগকারীর হাতে।

বণিক বার্তা

আইপিওর অর্থ ব্যবহারে আর্গন ডেনিমসের অনিয়ম

প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে সংগৃহীত অর্থ ব্যবহারে অনিয়ম করেছে আর্গন ডেনিমস। এ কোম্পানির নিরীক্ষক পিনাকি অ্যান্ড কোং সর্বশেষ নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদনে এ বিষয়ে ৪টি অভিযোগ উত্থাপন করেছে।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ সূত্রে জানা গেছে, আইপিওর অর্থ ব্যবহারের ক্ষেত্রে প্রসপেক্টাসে উল্লিখিত শর্ত পালন করেনি আর্গন ডেনিমস। তাই কোম্পানির নিরীক্ষক এ সংক্রান্ত ৪টি অনিয়মের বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে।

পিনাকী অ্যান্ড কোং কর্তৃক যে চারটি অনিয়মের বিষয়ে আর্থিক প্রতিবেদনে ‘মেটার অব এমফেসিস’ দেওয়া হয়েছে সেগুলো হচ্ছে-

১. প্রসপেক্টাসে উল্লিখিত আইপিও তহবিল থেকে স্বল্পমেয়াদী ঋণ অতিরিক্ত সমন্বয়।

২. প্রসপেক্টাসে উল্লিখিত পরিমাণের চেয়ে আইপিও খাতে অতিরিক্ত ব্যয়।

৩. ব্রিজ ফাইন্যান্স ও স্বল্পমেয়াদী ঋণের বিপরীতে আইপিও ফান্ড থেকে দায় সমন্বয়, যা প্রসপেক্টাসে উল্লেখ করা হয়নি।

৪. প্রকল্প সম্প্রসারণের লক্ষ্যে নির্মাণসামগ্রী কেনার বিপরীতে বিভিন্ন সরবরাহকারী ও ঠিকাদারদের চেকের পরিবর্তে আইপিও তহবিল থেকে নগদ অর্থ পরিশোধ।

উপরোক্ত অনিয়মের বিষয়ে কথা বলতে চাইলে আর্গন ডেনিমসের প্রধান অর্থ কর্মকর্তা মোস্তফা কামাল ফোনে কথা বলতে অস্বীকৃতি জানান। এ সব বিষয়ে ফোনে কথা বলা ঠিক নয় বলে তিনি মন্তব্য করেন।

উল্লেখ্য, আর্গন ডেনিমস আইপিওতে ১০ টাকা অভিহিত মূল্যের প্রতিটি শেয়ারের সঙ্গে ২৫ টাকা প্রিমিয়াম নেয়। আইপিওর মাধ্যমে কোম্পানিটি ‍পুঁজিবাজার থেকে ১০৫ কোটি টাকা উত্তোলন করেন। এর মধ্যে ফেসভ্যালুতে ৩০ কোটি এবং প্রিমিয়ামের মাধ্যমে ৭৫ কোটি টাকা। গত বছরের ১৯ ফেব্রুয়ারি থেকে এ কোম্পানির লেনদেন চালু হয়।

দ্য রিপোর্ট

 

হা-ওয়েলের লেনদেন শুরু বুধবার

প্রাথমিক গণ প্রস্তাব (আইপিও) প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়া হা-ওয়ের টেক্সটাইলস (বিডি) লিমিটেডের লেনদেন আগামী ১৪ মে, বুধবার থেকে দেশের প্রধান শেয়াবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) শুরু হবে। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, কোম্পানিটি ‘এন’ ক্যাটাগরিতে লেনদেন শুরু হবে, ডিএসইতে ট্রেডিং কোড “ঐডঅডঊখখঞঊঢ” এবং ডিএসই কোম্পানি কোড হলো:১৭৪৬১।


এর আগে গত ২৩ মার্চ কোম্পানিটির আইপিও লটারির ড্র অনুষ্ঠিহ হয়। কোম্পানিটির আইপিওতে মোট ৯০৬ কোটি ৮৯ লাখ ৮৫ হাজার টাকা জমা পড়ে। যা সংগৃহীত টাকার ৪৫.৩৪ গুণ। এর মধ্যে সাধারণ খাতে ৫৬৫ কোটি ৭২ লাখ ৮০ হাজার টাকা, ক্ষতিগ্রস্ত খাতে ৬৪ কোটি ৯২ লাখ ৫৫ হাজার টাকা, মিউচ্যুয়াল ফান্ড খাতে ২৪১ কোটি ৮৫ লাখ টাকা এবং প্রবাসী বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৩৪ কোটি ৩৯ লাখ ৮৫ হাজার টাকার আবেদন জমা পড়ে।

এর আগে কোম্পানিটির আইপিওতে ১৭ থেকে ২৩ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত আবেদন গ্রহণ করা হয়। তবে প্রবাসী বিনিয়োগকারীদের জন্য সুযোগ ছিল ৪ মার্চ পর্যন্ত।

নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৫০৪তম সভায় কোম্পানিটির আইপিও অনুমোদন দেয়া হয়।

কোম্পানিটি শেয়ারবাজার থেকে ২০ কোটি টাকা সংগ্রহের জন্য ২ কোটি শেয়ার ছেড়েছে। এ জন্য প্রতিটি শেয়ারের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১০ টাকা। ৫০০টি শেয়ারে মার্কেট লট।

কোম্পানিটির আইপিওর মাধ্যমে সংগৃহীত অর্থ দিয়ে মেশিনারিজ ও জমি ক্রয়, ভূমি উন্নয়ন, নতুন ফ্যাক্টরি ভবন নির্মাণ, বর্তমান মেশিনারিজ মেরামত এবং আইপিও খাতে ব্যয় করবে।

৩০ জুন ২০১৩ সমাপ্ত বছরের আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩.৬৬ টাকা এবং শেয়ারপ্রতি সম্পদ (এনএভি) হয়েছে ২৮.৭৮ টাকা।

এ কোম্পানির ইস্যু ব্যবস্থাপকের দায়িত্বে রয়েছে আলফা ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড এবং সিটিজেন সিকিউরিটিজ অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড। 

শেয়ারনিউজ২৪

শাহজিবাজারের রিফান্ড বিতরণ শুরু সোমবার

প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) লটারির ড্র শেষে শাহজিবাজার পাওয়ার কোম্পানি লিমিটেডের অ্যালোটমেন্ট লেটার এবং রিফান্ড ওয়ারেন্ট বিতরণ শুরু হবে আগামী ১২ মে, সোমবার। কোম্পানি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, আগামী ১২ মে থেকে ১৬ মে পর্যন্ত অ্যালোটমেন্ট লেটার এবং রিফান্ড ওয়ারেন্ট সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত, রাজধানীর পল্টন কমিউনিটি সেন্টার, ৪২ নয়াপল্টন, ঢাকা এবং কেন্দ্রীয় কচিকাঁচার মেলা, ৩৭/এ সেগুনবাগিচা, ঢাকায় বিতরণ করা হবে।

এর মধ্যে পল্টন কমিউনিটি সেন্টারে ১২ মে ব্যাংক এশিয়া, ১৩ মে ফাস্র্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড, ১৪ মে মার্কেন্টাইল ব্যাংক লিমিটেড, ১৫ মে মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক ও ১৬ মে সাউথইস্ট ব্যাংক।

কেন্দ্রীয় কচিকাঁচার মেলা থেকে ১২ মে ঢাকা ব্যাংক ও ইনভেস্টমেন্ট কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ (আইসিবি), ১৩ মে ইসলামী ব্যাংক, ১৪ মে যমুনা ব্যাংক, ১৫ মে সোস্যাল ইসলামী ব্যাংক এবং ১৬ মে অনিবাসী বাংলাদেশী (এনআরবি), মিউচ্যুয়াল ফান্ড ও আই/এ বিনিয়োগ হিসাবসমূহেরঅ্যালোটমেন্ট লেটার ও রিফান্ড বিতরণ করা হবে।

যেসব বিনিয়োগকারী নির্ধারিত তারিখের মধ্যেঅ্যালোটমেন্ট লেটার/রিফান্ড ওয়ারেন্ট সংগ্রহ করতে ব্যর্থ হবেন তাদেরঅ্যালোটমেন্ট লেটার/রিফান্ড ওয়ারেন্টসমূহ তাদের নিজ নিজ ঠিকানায় কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে পাঠানো হবে। 

(অনিবাসী বাংলাদেশী, আই/এ এবং মিউচ্যুয়াল ফান্ড ব্যতীত), এবি ব্যাংক, আল-আরাফাহ্ ব্যাংক, ব্যাংক আল-ফালাহ, ব্যাংক এশিয়া, ব্রাক ব্যাংক, কমার্শিয়াল ব্যাংক অব সিলন পিএলসি, ঢাকা ব্যাংক, ডাচ্-বাংলা ব্যাংক, ইস্টার্ন ব্যাংক, এক্সিম ব্যাংক, ফাস্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক, হাবিব ব্যাংক, এইচএসবিসি ব্যাংক, আইএফআইসি ব্যাংক, ইসলামী ব্যাংক (বিডি), যমুনা ব্যাংক, মার্কেন্টাইল ব্যাংক, মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক, ন্যাশনাল ব্যাংক, ন্যাশনাল ব্যাংক অব পাকিস্তান, এনসিসি ব্যাংক, ওয়ান ব্যাংক, প্রিমিয়ার ব্যাংক, প্রাইম ব্যাংক, শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক, সোস্যাল ইসলামী ব্যাংক, সাউথইস্ট ব্যাংক, স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক, স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়া, দি সিটি ব্যাংক, ট্রাস্ট ব্যাংক এবং উরি ব্যাংকের অ্যাকাউন্টহোল্ডারদের ব্যাংকে কোনো রিফান্ড ওয়ারেন্ট ইস্যু করা হবে না এবং তাদের টাকা স্ব স্ব অ্যাকাউন্টে তাদের ব্যাংক কর্তৃক সরাসরি জমা হবে। তবে কেউ যদি টাকা না পায় বা তাদের হিসাবে টাকা জমা না হয়, তাহলে তাদের আগামী ১ জুন থেকে ১৫ জুন পর্যন্ত নির্ধারিত ঠিকানায় যোগাযোগ করতে হবে।

নিম্নোল্লিখিত ব্যাংকসমূহের হিসাবধারীদের রিফান্ডের টাকা সরাসরি ব্যাংক হিসাবে (অনলাইন) জমা হবে, তাদের জন্য কোনো রিফান্ড ওয়ারেন্ট ইস্যু করা হবে না। 

(অনিবাসী বাংলাদেশী, আই/এ এবং মিউচ্যুয়াল ফান্ড ব্যতীত), এবি ব্যাংক, আল-আরাফাহ্ ব্যাংক, ব্যাংক আল-ফালাহ, ব্যাংক এশিয়া, ব্রাক ব্যাংক, কমার্শিয়াল ব্যাংক অব সিলন পিএলসি, ঢাকা ব্যাংক লি., ডাচ্-বাংলা ব্যাংক, ইস্টার্ন ব্যাংক, এক্সিম ব্যাংক, ফাস্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক, হাবিব ব্যাংক, এইচএসবিসি ব্যাংক, আইএফআইসি ব্যাংক, ইসলামী ব্যাংক (বিডি), যমুনা ব্যাংক, মার্কেন্টাইল ব্যাংক, মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক, ন্যাশনাল ব্যাংক, ন্যাশনাল ব্যাংক অব পাকিস্তান, এনসিসি ব্যাংক, ওয়ান ব্যাংক, প্রিমিয়ার ব্যাংক, প্রাইম ব্যাংক, শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক, সোস্যাল ইসলামী ব্যাংক, সাউথইস্ট ব্যাংক, স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক, স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়া, দি সিটি ব্যাংক, ট্রাস্ট ব্যাংক এবং উরি ব্যাংক।

 

শেয়ারনিউজ২৪