Monthly Archives: October 2013

Eid vacation notice

Dear All ,

Our customer service via phone will be closed from 11th October to 20th October on the occasion Eid-Ul-Adha and Durga Puja.However, we will provide support via email (support@bdipo.com) during this time. You can pay through online banking using cards or deposit money to our bank account on banking days. You will be able to use our software without any interruption.bdipo team wish a very happy, peaceful and prosperous Eid to everyone.

Thanks.

এএফসি এ্যাগ্রো বায়োটেকের আইপিও অনুমোদন

নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জে কমিশন (বিএসইসি) এএফসি এ্যাগ্রো বায়োটেক লিমিটেডের প্রাথমিক গণ প্রস্তাব (আইপিও) অনুমোদন করেছে। মঙ্গলবার কমিশনের ৪৯৭তম সভায় এ অনুমোদন দেয়া হয়ে।

বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মো: সাইফুর রহমান স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, এএফসি এ্যাগ্রো বায়োটেক শেয়ারবাজারে ১ কোটি ২০ লাখ শেয়ার ছেড়ে ১২ কোটি টাকা উত্তোলন করবে। এ জন্য প্রতিটি শেয়ারের অভিহিত মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১০টায়।

আইপিওর মাধ্যমে উত্তোলিত অর্থ দিয়ে প্রতিষ্ঠানটি মেশিনারীজ ক্রয় এবং আইপিও খাতে ব্যয় করবে।

৩০ জুন ২০১৩ অর্ধবার্ষিক আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী এ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.০১ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভি) হয়েছে ১১.১০ টাকা।

এ প্রতিষ্ঠানের ইস্যু ব্যবস্থাপকের দায়িত্ব পালন করছে ইমপেরিয়্যাল ক্যাপিটাল লিমিটেড এবং সিগমা ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড।

 

শেয়ারনিউজ২৪

খুলনায় অ্যাপোলো ইস্পাতের আইপিওতে সাড়া নেই

বাজার ধস পরবর্তী শেয়ারবাজারের প্রতিটি প্রাথমিক গণ প্রস্তাবে (আইপিও) খুলনায় ব্যাপক সাড়া লক্ষ্য করা গেলেও রোববার থেকে শুরু হওয়া অ্যাপোলো ইস্পাতের (রাণী মার্কা ঢেউটিন প্রস্তুত কারক) আইপিওতে সাড়া মিলছে না। তালিকাভুক্তি নিয়ে জটিলতা, অর্থমন্ত্রীর বক্তব্য ও বিভিন্ন পত্রিকায় কোম্পানিটির হাড়ির খবর ফাঁস হওয়াতে এমনটি হয়েছে বলে জানিয়েছেন সচেতন বিনিয়োগকারীরা।

তারা বলেন, কোম্পানিটি সম্পর্কে এসব খবর আমাদের প্রতিষ্ঠানটির প্রতি আস্থা কমিয়ে দিয়েছে। যারা দুই একটি আবেদন করেছেন তারাও সন্দেহের দোলাচলে রয়েছেন।

খোঁজ খবর নিয়ে জানা গেছে, নগরীর আইসিবি, ব্যাংক এশিয়া, ব্র্যাক ব্যাংক, দি সিটি ব্যাংক, আইএফআইসি ব্যাংক, যমুনা ব্যাংক, মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক, ন্যাশনাল ব্যাংক, ওয়ান ব্যাংক, শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক, সাউথ ইস্ট ব্যাংক, স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংকের নির্দিষ্ট শাখায় এ কোম্পানির আবেদন ফরম সংগ্রহ করতে ও জমা দিতে বিনিয়োগকারীদের উপস্থিতি মিলছে না।

সোমবার দুপুরে এসোসিয়েটেড ক্যাপিটাল সিকিউরিটিজ হাউজের খুলনা শাখা ব্যবস্থাপক ওয়েস আলী জামাল বলেন, খুলনায় প্রতিটি কোম্পানির আইপিওতে বিনিয়োগকারীদের ব্যাপক আগ্রহ লক্ষ্য করা গেলেও অ্যাপোলো ইস্পাতের আইপিওতে তেমন কোন আগ্রহ দেখা যাচ্ছে না।

তিনি জানান, কোম্পানিটি সম্পর্কে নানা বিরূপ খবর ও অর্থমন্ত্রীর বক্তব্যের কারণে বিনিয়োগকারীরা এ কোম্পানির আইপিওতে আবেদন করছেন না বলে তারা তাকে জানিয়েছেন।

জানা গেছে, ২০১২ সালের ১৩ ডিসেম্বর কমিশন অ্যাপোলো ইস্পাত লিমিটেডকে ১০ টাকা অভিহিতমূল্যের সঙ্গে ১২ টাকা প্রিমিয়ামসহ মোট ১০ কোটি শেয়ার ছেড়ে ২২০ কোটি টাকা সংগ্রহ করার অনুমতি দেয়া হয়। অর্থমন্ত্রী অ্যাপোলো ইস্পাতের আইপিও প্রক্রিয়া স্থগিতের বিষয়ে চলতি বছর ৬ ফেব্রুয়ারি বিএসইসির কাছে চিঠি দেন। ওই চিঠিতে কোম্পানিটিকে বদমায়েশ বলে উল্লেখ করে তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত কমিটি গঠনের নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। বিএসইসির চেয়ারম্যানের কাছে দেয়া চিঠিতে অর্থমন্ত্রী উল্লেখ করেছেন, কোম্পানিটি আইপিওতে যাওয়ার ব্যাপারে তার কাছে নালিশ এসেছে। বেশ কিছুদিন থেকে কো�পানিটি অচল। আইপিওর মাধ্যমে তারা বেশ কিছু সম্পদ লুটের আয়োজন করে।

পরবর্তী সময়ে ১২ ফেব্রুয়ারি অর্থমন্ত্রীর নির্দেশে বিএসইসি কোম্পানির আইপিও প্রক্রিয়া স্থগিত করে। কিন্তু মন্ত্রী নিজেই এক মাসের ব্যবধানে তার অবস্থান পরিবর্তন করেন।

উল্লেখ্য, অ্যাপোলো ইস্পাত লিমিটেডের প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) আবেদন রোববার থেকে শুরু হয়ে ১০ অক্টোবর পর্যন্ত চলবে। তবে প্রবাসী বিনিয়োগকারীরা ১৯ অক্টোবর পর্যন্ত আবেদন করার সুযোগ পাবেন।

জানা যায়, অ্যাপোলো ইস্পাত শেয়ারবাজারে ১০ কোটি শেয়ার ছেড়ে ২২০ কোটি টাকা সংগ্রহ করবে। প্রতিটি শেয়ারের ১০ টাকা ফেসভ্যালুর সঙ্গে ১২ টাকা প্রিমিয়ামসহ মোট ২২ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। ২০০টি শেয়ারে লট নির্ধারণ করা হয়েছে। প্রতিষ্ঠানের অনুমোদিত মূলধন ৫০০ কোটি টাকা এবং আইপিও পূর্ববর্তী পরিশোধিত মূলধন ১৫০ কোটি। ৩০ জুন ২০১২ সমাপ্ত অর্থবছরের হিসাব অনুযায়ী প্রতিষ্ঠানটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২.৩৬ টাকা এবং শেয়ারপ্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ২২.৫৯ টাকা।

অ্যাপোলোর প্রসপেক্টাস থেকে জানা যায়, আইপিওর মাধ্যমে সংগৃহীত অর্থ হতে ১৫৩ কোটি টাকা ব্যাংকের ঋণ পরিশোধ করা হবে এবং ৬০ কোটি টাকা পরিবেশবান্ধব জার্মান প্রযুক্তির নফ (Non Oxidizing Furnace) প্রকল্প বাস্তবায়ন কাজে ব্যয় করা হবে। এছাড়া নতুন প্রকল্পের প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি ইতিমধ্যে আমদানি করা হয়েছে যা ২০১৪ সালের মাঝামাঝি নাগাদ বাণিজ্যিক উৎপাদনে যাবার আশা করছে কোম্পানি কর্তৃপক্ষ।

শেয়ারনিউজ২৪

বিল্ডিং সিস্টেমসের লেনদেন শুরু মঙ্গলবার

প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে অর্থ উত্তোলনের পর বাংলাদেশ বিল্ডিং সিস্টেম লিমিটেডের শেয়ার লেনদেন ৮ অক্টোবর, মঙ্গল থেকে শুরু হবে দেশের উভয় শেয়ারবাজারে। ডিএসই ও সিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।জানা গেছে, এ জন্য প্রতিষ্ঠানটির ক্যাটাগরি নির্ধারণ করা হয়েছে ‘এন’, ডিএসই ট্রেডিং কোড হচ্ছে “BDBUILDING” এবং ডিএসই কোম্পানি কোর্ড হচ্ছে: ১৩২৩২। আর সিএসইতেও কোম্পানিটির লেনদেন হবে ‘এন’ ক্যাটাগরিতে, সিএসই ট্রেডিং কোড হচ্ছে “BDBUILDING” এবং সিএসই কোম্পানি কোড হচ্ছে: ১৬০২৬।

এর আগে প্রতিষ্ঠানটি প্রাথমিক গণ প্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে শেয়ারবাজারে ১ কোটি ৪০ লাখ শেয়ার ছেড়ে মোট ১৪ কোটি টাকা উত্তোলন করে। এ শেয়ারের নির্দেশক মূল্য নির্ধারণ করা হয় ১০ টাকা। অর্থাৎ কোনো প্রিমিয়াম নেয়া হয়নি। এ প্রতিষ্ঠানটির ৫০০টি শেয়ারে একটি লট।

টাকা উত্তোলনের পর গত ২২ আগষ্ট প্রতিষ্ঠানটির আইপিও লটারির ড্র অনুষ্ঠিত হয়। এর আগে গত ২১ জুলাই থেকে ২৫ জুলাই আইপিও আবেদন জমা নেয়া হয়। প্রবাসী বিনিয়োগকারীদের কাছে থেকে আবেদন জমা নেয়া হয় ৩ আগস্ট পর্যন্ত।

প্রতিষ্ঠানটির আইপিওতে টাকার অংকে ৪৫.৯৫ গুন আবেদন জমা পড়েছিলো। অর্থাৎ প্রতিষ্ঠানটির আইপিওতে ১৪ কোটি টাকার বিপরীতে ৬৪৩ কোটি ২৮ লাখ ৮০ হাজার টাকার আবেদন জমা পড়ে। এর মধ্যে সাধারণ বিনিয়োগকারী কোটায় ৪৩৪ কোটি ৯ লাখ ৭০ হাজার টাকার, ক্ষতিগ্রস্ত কোটায় ৫৩ কোটি ৭৩ লাখ ৭০ হাজার টাকার এনআরবি কোটায় ২৭ কোটি ২৫ লাখ ৪০ হাজার টাকার এবং মিউচ্যুয়াল ফান্ড কোটায় ১২৮ কোটি ২০ লাখর আবেদন জমা পড়েছিলো।

শেয়ারনিউজ২৪

৩০ জুন ২০১২ সমাপ্ত অর্থ বছরের হিসাব অনুযায়ী প্রতিষ্ঠানটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২.৫৮ টাকা এবং শেয়ারপ্রতি সম্পদ (এনএভি) হয়েছে ১৩.০৭ টাকা। প্রতিষ্ঠানটির ইস্যু ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করছে জনতা ক্যাপিটাল অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড।

সংগৃহীত অর্থে কোম্পানির ব্যাংক ঋণ পরিশোধ করা হবে।

প্রতিষ্ঠানটির ৩১ মার্চ ২০১৩ (জানু-মার্চ’১৩) তৃতীয় প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনযায়ী কর পরবর্তী মুনাফা হয়েছে ২ কোটি ২০ লাখ ১০ হাজার টাকা এবং শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৪৪ টাকা। যা আগের বছর একই সময়ে ছিলো যথাক্রমে ৮৪ লাখ ৪০ হাজার টাকা এবং ০.২৭ টাকা।

এদিকে ৩১ মার্চ ২০১৩ (জুলাই’১২-মার্চ’১৩) সমাপ্ত নয় মাস শেষে কর পরবর্তী মুনাফা হয়েছে ৬ কোটি ৫ লাখ টাকা এবং শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.২১ টাকা। যা আগের বছর একই সময়ে ছিলো যথাক্রমে ৩ কোটি ৬০ হাজার টাকা এবং ১.৭৬ টাকা।

প্যারামাউন্ট টেক্সটাইলের আইপিও লটারি বৃহস্পতিবার

প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল লিমিটেডের প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) লটারি আগামীকাল ৩ অক্টোবর, বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত হবে। কোম্পানি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, এ দিন প্রতিষ্ঠানটির আইপিও লটারি সকাল ১০টায়, রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনষ্টিটিউটে অনুষ্ঠিত হবে।

প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল লিমিটেডের প্রাথমিক গণ প্রস্তাবে (আইপিও) মোট ১০.৩৫ গুন আবেদন জমা পড়েছে। অর্থাৎ প্রতিষ্ঠানটির আইপিওতে মোট ১ লাখ ২০ হাজার আবেদনে বিপরীতে ১২ লাখ ৪২ হাজার আবেদন জমা পড়েছে। আর টাকার অংকে ৮৪ কোটি টাকার বিপরীতে মোট জাম পড়েছে ৮৬৯ কোটি ৪০ লাখ টাকা।

প্রতিষ্ঠানটির আইপিওতে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ১২ গুন বেশি, প্রবাসি বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৪ গুন, ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৪ গুন এবং মিউচ্যুয়াল ফান্ড খাতের বিনিয়োগকারীদের কাছে থেকে ১৯.৫৫ গুন বেশি আবেদন জমা পড়েছে।

উল্লেখ্য, গত ১ সেপ্টেম্বর থেকে ৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত প্রতিষ্ঠানটির আইপিওতে আবেদন গ্রহণ করা হয়। আর প্রবাসী বিনিয়োগকারীদের জন্য এ সুযোগ ছিলো ১৪ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত।

প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল লিমিটেড শেয়ারবাজারে ৩ কোটি শেয়ার ছেড়ে মোট ৮৪ কোটি টাকা সংগ্রহ করবে। এ প্রতিষ্ঠানটির প্রতিটি শেয়ারের নির্দেশক মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ২৮ টাকা। অর্থাৎ প্রতিটি ১০ টাকা ফেস ভ্যালুর শেয়ারে ১৮ টাকা প্রিমিয়াম নেবে কোম্পানিটি। এছাড়া মার্কেট লট নির্ধারণ করা হয়েছে ২৫০টি শেয়ারে।

আইপিও থেকে সংগৃহীত অর্থ কোম্পানির ব্যাংক ঋণ এবং আইপিও খরচ বাবদ ব্যয় করা হবে।

৩০ জুন ২০১২ সমাপ্ত অর্থ বছরের হিসাব অনুযায়ী প্রতিষ্ঠানটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩.৪৭ টাকা এবং শেয়ারপ্রতি সম্পদ (এনএভি) হয়েছে ১৮.৩১ টাকা।

প্রতিষ্ঠানটির ইস্যু ব্যবস্থাপকের দায়িত্ব পালন করছে আইডিএলসি ইনভেস্টমেন্টস লিমিটেড।

শেয়ারনিউজ২৪

আইপিওর মাধ্যমে মুলধন বাড়াবে সামিট উত্তরাঞ্চল

জ্বালানী খাতের প্রতিষ্ঠান সামিট উত্তরাঞ্চল পাওয়ার প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে পরিশোধিত মূলধন বাড়াবে। মুলধন বাড়ানোর প্রস্তাব অনুমোদন করেছে সামিট পাওয়ার লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদ। মঙ্গলবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ওয়েবসাইট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, সামিট উত্তরাঞ্চল পাওয়ার পরিশোধিত মূলধন ৬৭ কোটি ৯৭ লাখ থেকে ৯০ কোটি ৪৭ লাখ টাকা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এ জন্য প্রতিষ্ঠানটি ২ কোটি ২৫ লাখ শেয়ার ইস্যু করবে। প্রতিটি শেয়ারের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১০ টাকা। নির্ধারিত দরে প্রস্তাব অনুযায়ী কোম্পানিটি আইপিওর অনুমোদন নেবে।

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত প্রতিষ্ঠানটি আইপিওর মাধ্যমে সংগ্রহীত অর্থ দিয়ে প্রতিষ্ঠানটির ঋণ পরিশোধ এবং পরিচালন মূলধন বৃদ্ধি করবে।

দৈনিক স্টক বাংলাদেশ